অবশেষে চালু হচ্ছে ভুলতা উড়াল সেতুর একটি লেন উদ্বোধন করবেন  প্রধানমন্ত্রী

আপডেট: মার্চ ১৫, ২০১৯
0

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জউপজেলায় ৩৫৩ কোটি ৩৬ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত ৪লেন বিশিষ্ট তৃতীয় তলা ভুলতা ফ্লাইওভার একটি মেগাপ্রকল্প।

আগামী ১৬ মার্চ এশিয়ান হাইওয়ের (বাইপাস) ভুলতাফ্লাইওভার উড়াল সেতুর গাজীপুর-মদনপুর সড়কের একটিলেন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করবেনপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এতে করে এখানকার যানজট অনেকাংশে কমে যাবে। কমবেসাধারন মানুষের ভোগান্তিও।বৃহস্পতিবার সকালে রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহীকর্মকর্তা (ইউএনও) মমতাজ বেগম ফ্লাইওভার পরিদর্শনকরে ভুলতা ফ্লাইওভার উড়াল সেতুর এশিয়ান হাইওয়ের(বাইপাস) গাজীপুর-মদনপুর সড়কের একটি লেন ভিডিওকনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধনকরবেন বলে নিশ্চিত করেছেন তিনি।

স্থানীয়রা জানান, এ উপজেলার ভুলতা এলাকায় রয়েছে দক্ষিনএশিয়ার অন্যতম বৃহত্তহম পাইকারি কাপড়ের বাজারগাউছিয়া মার্কেট। এছাড়া ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক ওএশিয়ান হাইওয়ের সংযোগস্থল হওয়ায় এখানে যানজট ছিলনিত্যদিনের সঙ্গী।ভুলতা ফ্লাইওভারটির একপাশ উদ্বোধন শেষে খুলে দেওয়া হলেযানজট নিরসন হবে বলে আশা করছেন স্থানীয়রা। এতে করেসারাদেশের এ উপজেলার সাথে সারাদেশের যাতায়াতব্যবস্থার গতিশীলতা বাড়বে। ভুলতা ফ্লাইওভার উড়াল সেতু
নির্মাণ হওয়ার কারণে এ এলাকায় জমির দামও বেড়ে গেছেকয়েকগুন।পরিবহন শ্রমিকেরা জানান, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কেরভুলতা এলাকায় যানজট তাদের নিত্যদিনের সঙ্গী। একঘণ্টার পথ যেতে সময় লাগে ৩ ঘণ্টা।ভুলতা ফ্লাইওভারের কাঞ্চন-মদনপুর লেনের উদ্বোধন হলেযানজট অনেকাংশে যাবে বলে তিনি মনে করেন। এতে করেসাধারণ মানুষকে ভোগান্তি পোহাতে হবে না।এ ফ্লাইওভারটি উদ্বোধন হলে বন্দর নগরী চট্টগ্রাম সহদেশের দক্ষিণ পূর্বাঞ্চল থেকে ঢাকা হয়ে ময়মনসিংহবিভাগ সহ উত্তর পশ্চিমাঞ্চল সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা তথাজনগণের যাতায়াত ও পন্য পরিবহন দ্রুত, সহজ ও নিরাপদহবে।জানা গেছে, ২০১৫ সালের অক্টোবরে ২৪০কোটি টাকাব্যায়ে ৪ লেন বিশিষ্ট ভুলতা ফ্লাইওভার উড়াল সেতুটিনির্মাণে চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিসাক্ষর করেছিল সরকার।বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে ফ্লাইওভারটি নির্মাণেরকাজ পেয়েছিলো চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়নারেলওয়ে ২৪ব্যুরো গ্রুপ কোং, স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ার্সলিমিটেড ও এএম বিল্ডার্স। চার লেনবিশিষ্ট ফ্লাইওভারেরদৈর্ঘ হবে ১ দশমিক ২৩৮ কিলোমিটার। মূলফ্লাইওভারের নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ১২০কোটিটাকা, সড়ক নির্মাণে ব্যয় ১১২ কোটি টাকা এবংঅন্যান্য ব্যয় ধরা হয় সাড়ে ৭কোটি টাকা।সড়ক যোগাযোগ ও সেতু মন্ত্রনালয়ের আওতাধীনপ্রকল্পটির মেয়াদ ছিল জুন পর্যন্ত। নির্ধারিত সময়েরমধ্যে কাজ শেষ করতে না পারায় প্রকল্পটির মেয়াদ আরো ১বছর বাড়ানো হয়। একই সঙ্গে চলতি বছরের ৮ আগষ্ট
ফ্লাইওভারটি নির্মানে আরো ৫৮ কোটি ৫১ লাখ ২০হাজার ৪৮৬ টাকা বাড়ায় মন্ত্রীসভা কমিটি।পাট ও বস্ত্রী মন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীরগাজী বলেন, চার লেন বিশিষ্ট ৩ তলা ফ্লাইওভারটিরএশিয়ান হাইওয়ে (বাইপাস) কাঞ্চন-মদনপুর সড়কেরফ্লাইওভারটির পুরো সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ১৬ মার্চকাঞ্চন-মদনপুর সড়কের ফ্লাইওভারটি প্রধানমন্ত্রী শেখহাসিনা উদ্বোধন করবেন।এছাড়া ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ফ্লাইওভারটির কাজপ্রায় ৯০শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। অতিদ্রুত ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ফ্লাইওভারটিও উদ্বোধন করা হবে। আরওই অংশটুকু চালু করা হলে এখানে কোন যানজট থাকবেনা।

LEAVE A REPLY