অস্ত্রের মুখে সন্তান – শাশুড়িকে জিম্মি করে গৃহবধূকে ধর্ষণ, ওসি বলছেন নাটক

আপডেট: নভেম্বর ২৮, ২০১৯
0

নোয়াখালী : নোয়াখালীর সুবর্ণচরের চর মজিদে অস্ত্রের মুখে দুই সন্তান ও শাশুড়িকে আটক রেখে গভীর রাতে গৃহবধূকে ধর্ষণ করেছে সন্ত্রাসীরা।
এ ব্যাপারে চরজব্বর থানায় মামলা না নেওয়ায় সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ধর্ষণের শিকার নারী নিজেই বাদী হয়ে মামলা করেন।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই নারী (২৫) জানান, তার স্বামী জেলে।
সে প্রতি মৌসুমের মতো এবারও মাছ ধরতে যায়।
এ সুযোগে এলাকার প্রভাবশালী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা বাহার, হেলাল, মিরাজ তাকে প্রায় সময় কুপ্রস্তাব দিত। সে রাজি না হওয়ায় শনিবার মধ্যরাতে হেলাল, মিরাজ ও বাহার বন্দুক, রামদা নিয়ে তার ঘরের দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে তার শাশুড়ি, ছেলে সাইফুল (৫) ও মেয়ে নেহাকে (৩) জিম্মি করে ফেলে।

তিনি জানান, এরপর শাশুড়ি ও সন্তানদের সামনে তাকে উপর্যুপরি ধর্ষণ করে ফেলে যায়।
সন্ত্রাসীরা চলে যাওয়ার পর প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে চরজব্বর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক চিকিৎসক জানান, ওই নারীর রক্তপাত বন্ধ হচ্ছে না।
তার জন্য মেডিকেল টিম গঠন করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ওই নারী গণমাধ্যমকে জানান, ঘটনার পরদিন থেকে ২/৩ বার থানায় মামলা করতে গেলেও পুলিশ মামলা না
নেওয়ায় বুধবার ধর্ষক বাহার, হেলাল ও মিরাজকে আসামি করে নোয়াখালীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সাহেদ উদ্দিন গণমাধ্যমকে জানান, এটা নাটক।
এ অঞ্চলে মাঝে-মাঝে এ রকমের নাটক হয়ে থাকে। নোয়াখালীর পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন ওসির বক্তব্যের বিষয়ে জানান, এ ব্যাপারে তদন্ত করে কঠোর
থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY