ইসলাম বিষয়ে বিতর্কিত বক্তব্য: আলেমদের তোপের মুখে ইমরান খান

আপডেট: জুন ১৩, ২০১৯
0

জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে রাসুল (সা.) ও সাহাবাদের বিষয়ে ভুল তথ্য উপস্থাপন করায় দেশব্যাপী সমালোচিত হচ্ছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। পড়েছেন আলেম সমাজের তোপের মুখেও।

দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের নামে পাকিস্তানের শীর্ষ রাজনীতিবিদদের গ্রেফতার-পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে মঙ্গলবার মধ্যরাতে জাতির উদ্দেশে ভাষণে কথা প্রসঙ্গে বদর যুদ্ধের আলোচনা করেন ইমরান খান। বলেন, বদর যুদ্ধে রাসুলের (সা.) সঙ্গে মাত্র ৩১৩ জন সাহাবি অংশ নেন। অন্য সাহাবিরা ভয়ে এ যুদ্ধে অংশ নেননি। পাশাপাশি ওহুদ যুদ্ধ নিয়েও ভুল বক্তব্য দেন ইমরান।

প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বক্তব্যে ভুল রয়েছে জানিয়ে পাকিস্তানের বিখ্যাত আলেম মুফতি তাকি উসমানী একটি টুইট করেছেন।

টুইটবার্তায় তিনি বলেন, ‘বদর যুদ্ধে রাসুলের (সা.) সঙ্গে মাত্র ৩১৩ জন সাহাবি অংশ নেন। অন্য সাহাবিরা ভয়ে এ যুদ্ধে অংশ নেননি।’ প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্য নিতান্তই অজ্ঞতার পরিচায়ক।

হযরত কাব (রা.) স্পষ্টভাবে বলেছেন, খুব দ্রুত কাফেরদের কাফেলাকে ধাওয়া করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। এ জন্য অনেক সাহাবি বদর যুদ্ধে অংশ নিতে পারেননি। এটিকে ভয় বা কাপুরুষতা বলা খুবই অন্যায় ও জুলুম।

ওহুদ যুদ্ধ নিয়েও আলাদা টুইট করেন মুফতি তাকি উসমানী। বিশ্বখ্যাত এ আলেম বলেন, ওহুদ যুদ্ধে পাহাড়ের পাদদেশ থেকে সাহাবাদের সরে যাওয়ার বিষয়টি একটি পর্যালোচনামূলক সিদ্ধান্ত ছিল।

ওই সাহাবিরা মনে করেছিলেন শত্রুরা সরে গেছে এবং যুদ্ধও শেষ হয়ে গেছে। তাই তারা ওই স্থান থেকে সরে যান। এটিকে জেনেশুনে অবাধ্যতা বলা যায় না। এ ভুলের জন্য তাদের নাফরমান বলা এবং তাদের শানে লুটতরাজের শব্দ ব্যবহার করা চরম বেয়াদবি।

পাকিস্তানের মিডিয়ার পরিচিত মুখ, করাচির জামিয়াতুর রশিদের অধ্যাপক সাইয়েদ আদনান কাকাখালী বলেন, সিরাত ও ইতিহাস বিষয়ে ইমরান খানের জানাশোনা খুবই কম। এমন বিষয়ে সঠিক তথ্য না জেনে তার উদাহরণ ও মতামত দেয়াটা খুবই আপত্তিকর হয়েছে। এ বিষয়ে তার জ্ঞানের পরিধি বাড়ানো উচিত।

বদর ও ওহুদ বিষয়ে তার বক্তব্য, রাসুল (সা.) ও সাহাবাদের মোবারক জামাতের ব্যাপারে তার বেপয়োরা মন্তব্য ইতিহাস সম্পর্কে অজ্ঞতার একটি উজ্জল দৃষ্টান্ত ।

ইমরান খানের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে পাকিস্তানের আরেক আলেম ও কলামিস্ট মাওলানা যাহেদ রাশেদী বলেছেন, ইমরান খান ইসলামী ইতিহাস সম্পর্কে খুবই কম জানেন। সাহাবা-এ-কেরাম ও বদর-ওহুদ যুদ্ধ সম্পর্কে তার বক্তব্য সেই কথারই প্রমাণ বহন করে। পাশ্চাত্য ইতিহাসের সূত্রে তার বক্তব্যে এমন ভুল হয়েছে বলে জানান রাশেদী।

এ ছাড়া পাকিস্তানের শীর্ষস্থানীয় প্রায় সব আলেমই ইমরান খানের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY