‘উগ্রবাদবিরোধী রচনা প্রতিযোগিতা স্কুল-কলেজ বাদ রেখে শুধু মাদরাসায় কেন?’

আপডেট: মে ২৯, ২০১৯
0

হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন, গণমাধ্যমে প্রচারিত এমন একটা খবর আমাদের নজরে এসেছে, যাতে বলা হয়েছে- “মাদরাসা শিক্ষার্থীদের জন্য উগ্রবাদবিরোধী রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট”।

কিন্তু এই প্রতিযোগিতা থেকে দেশের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়সহ সাধারণ শিক্ষার ছাত্র-ছাত্রীদেরকে বাদ রাখা হয়েছে।

পুলিশের এমন এক তরফা উদ্যোগে দেশের আলেম সমাজ ও লাখ লাখ মাদরাসা শিক্ষার্থীসহ সাধারণ তৌহিদী জনতার মনে গভীর উদ্বেগ ও শংকা তৈরি হয়েছে।

আজ (২৯ মার্চ) এক বিবৃতিতে হেফাজত মহাসচিব আরো বলেন, গত ২৫ মে ডিএমপির মিডিয়া ও পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের প্রচারিত বিবৃতিতে স্পষ্ট বলা হয়েছে যে, “এ উদ্দেশ্যে মাদরাসা শিক্ষার্থীদের মধ্যে সহিংস উগ্রবাদবিরোধী সচেতনতা সৃষ্টির জন্য ‘সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধে ইসলামী শিক্ষা’ শীর্ষক রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে”।

তিনি বলেন, আমাদের প্রশ্ন, পুলিশ স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন সচেতনতা তৈরির প্রয়োজন মনে করল না কেন? অথচ গুলশানের হলিআর্টিজানের ভয়াবহ সন্ত্রাসী ঘটনাসহ এ পর্যন্ত বাংলাদেশে যেসব উগ্রবাদি ঘটনা সংঘটিত হয়েছে, তার কোনটির সাথেই মাদ্রাসা ছাত্রদেরক সংশ্লিষ্টতা দেখা যায়নি। প্রধামন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণও বিভিন্ন বক্তব্যে বার বার বলেছেন যে, জঙ্গিবাদের সাথে আলেম-উলামা ও মাদ্রাসা ছাত্ররা নয়, বরং ইংলিশ মিডিয়াম ও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও বিত্তশালী পরিবারের সন্তানরাই জড়িত।

আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ ডিএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, অবিলম্বে মাদ্রাসা শিক্ষা, আলেম-উলামা ও ইসলামী শিক্ষার প্রতি নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টিকারী এই প্রতিযোগিতা বন্ধ করুন। এই প্রতিযোগিতা বহাল থাকলে দেশের আলেম সমাজ ও জনগণের মনে পুলিশের ভূমিকা সম্পর্কে যেমন সংশয় জাগবে, তেমনি ভাবমূর্তিকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থী তরুণ-কিশোরদের মধ্যে সহিংস উগ্রবাদ বিরোধী সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রতিযোগিতার প্রয়োজন মনে করা হলে, এতে স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটির সাথে প্রয়োজনে মাদ্রাসার ছাত্রদেরকেও শামিল করুন। তাতে কারোরই আপত্তি থাকবে না।

 

LEAVE A REPLY