‘করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত না হলেও ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২০
0

বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, চীন থেকে ফিরে আসা বাংলাদেশি নাগরিক সবাই সুস্থ আছেন। আশকোনা হজ্বক্যাম্পে তারা কোয়ারান্টাইন ব্যবস্থায় আছেন। এছাড়াও হাসপাতালে ভর্তি করা ৮ জনও সুস্থ আছেন।

আজ (রোববার) দুপুরে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন,
দেশে এখনো করোনাভাইরাস আক্রান্ত কোনো রোগী সনাক্ত হয়নি।
জাহিদ মালেক

এদিকে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) জানিয়েছে,
চীনের উহান থেকে ফেরত আসা ৩১২ বাংলাদেশির কারো শরীরেই করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব মেলেনি।

আজ (সোমবার) রাজধানীর মহাখালী আইইডিসিআর কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক ডা.
মিরজাদি সাবরিনা ফ্লোরা বলেন, উহান থেকে আসা ৭ বাংলাদেশিকে পরীক্ষা শেষে আবারো ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে আশকোনো হজ ক্যাম্পে।

দিকে, চীনে অবস্থানরত এক বাংলাদেশি ছাত্রের একটি ভিডিও বার্তা অনলাইনে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। তিনি সেখানে অবস্থানরত সবার জন্য দোয়া কামনা করেছেন। এছাড়া বাংলাদেশে কর্মরত ২৩ জন চীনা নাগরিক নিজ দেশে ছুটি কাটিয়ে শনিবার ঢাকায় ফিরে এলে তাদের মধ্যে ৮ জনকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেয়া হয়। বাকি ৩২৫ জন বাংলাদেশি ও চীনা নাগরিককে কোয়ারেন্টাইনের জন্য আশকোনা হজ ক্যাম্পে রাখা হয়েছে।

এদিকে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেছেন, করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত না হলেও ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ। ভাইরাসটি যাতে বাংলাদেশের ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য জনচেতনা সৃষ্টি করতে হবে।

রোববার বিএসএমএমইউ’তে অনুষ্ঠিত স্বাস্থ্য বিষয়ক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় করণীয় বিষয়গুলি দ্রুততার সাথে নির্ধারণ করতে হবে।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ ও চিকিৎসার লক্ষ্যে জরুরি করণীয় নির্ধারণে আজ বিএসএমএমইউ’র ভাইরোলজি বিভাগ, মাইক্রোবায়োলজি বিভাগ, বক্ষব্যাধি বিভাগ এবং এ্যানেসথেসিয়া, এনালজেসিয়া এন্ড ইনটেনসিভ কেয়ার মেডিসিন বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।#

পার্স টুডে

LEAVE A REPLY