কুয়াকাটায় প্রেমের ফাঁদে ফেলে ১ নারীকে গনধর্ষনের অভিযোগ : আটক ৫

আপডেট: অক্টোবর ৯, ২০১৮

আবুল হোসেন রাজু,কলাপাড়া-কুয়াকাটা প্রতিনিধি: প্রেমের ফাঁদে ফেলে কুয়াকাটায় হোটেলে আটকে রেখে নারীকে ধর্ষনের অভিযোগে পুলিশ পাঁচ জনকে আটক করেছে। ধর্ষনের শিকার নারীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে পাঁচজনকে আসামী করে মহিপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন ঐ নারী। সকাল এগারোটায় পটুয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার মোঃ মইনুল হাসান সাংবাদিকদের প্রেসব্রিফিং এ কথা জানান।
প্রেস ব্রিফিং কালে পুলিশ সুপার আরো বলেন, দিনাজপুরের বিরল থানার দৌলতপুর গ্রামের স্বামী পরিত্যাক্ত নারীর সাথে কুয়কাটার শহিদুলদের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক তৈরী হয়। তার আহবানে সাড়া দিয়ে ঐ নারী সাত অক্টোবর কুয়াকাটায় ঘূরতে আসেন। সাত তারিখ রাতে শহিদুল তাঁকে স্থানীয় যমুনা গেষ্ট হাউসের দশ নম্বর কক্ষে জোড় করে ধর্ষন করে। পরে তার সহযোগীতায় বেঙ্গল গেষ্ট হাউসে নিয়ে পূনরায় আলমগীর,সাইফুল,খলিল,সাইদুর ও রুবেল ও তাঁকে ভয়বীতি দেখিয়ে ধর্ষন করে। ৮ অক্টোবর রাতে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে ঐ নারীকে উদ্ধার করে মহিপুর থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় পুলিশ শাপলা বেগম (৩০) বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করে। যার মামলা নং ০৭,তারিখ ০৯-১০-২০১৮। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কলাপাড়া সার্কেল),মহিপুর থানর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ গনমাধ্যম কর্মিরা।
তবে আটককৃতরা উল্লেখিত দুই আবাসিক হোটেলের ম্যাজোর, পতিতা দালাল এবং পুলিশের সোর্স বলে জানা যায়।
যমুনা হোটেলের ম্যানেজার সাইফুল সাংবাদিকদের জানান, ওই নারী একজন প্রতিষ্ঠিত পতিতা ব্যবসায়ী। ওই নারীকে কেউ জোরপুর্বক ধরে আনেনি। সে পতিতা বৃত্তি করার জন্য হোটেলে এসেছে।
আবাসিক হোটেল বেঙ্গল গেষ্ট হাউজের ম্যানেজার সাইদুর রহমান সুমন বলেন, ঘটনার দিন গত সোমবার সকালে সে ছুটি নিয়ে শশুর বাড়ি যায়। সন্ধায় তাকে ফোন দিয়ে এনে এ ঘটনার সাথে জড়ানো হয়েছে। এ বিষয় তার কিছুই জানা নেই।
স্থাণীয় বাসিন্দা জাহাঙ্গীর ওরফে সাদা জাহাঙ্গীর দাবি করেন, মামলার বাদি সালমা বেগমের মোবাইলে কুয়াকাটার প্রায় দুই ডজন আবাসিক হোটেলের বয় ম্যানেজারের মোবাইল নম্বর রয়েছে। সে প্রকৃত পতিতা ব্যবসায়ী।
এসব অভিযোগের বিষয়ে পুলিশ সুপার মইনুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন,তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনার সত্যতা যাচাই বাছাই করে দেখা হবে।