গাজীপুরে ধর্ষণের শিকার কিশোরী ৭ মাসের অন্ত:সত্বা, গ্রেপ্তার-১

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৮

গাজীপুর সংবাদদাতাঃ গাজীপুরের শ্রীপুরে তৃতীয় শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে (১২) ধর্ষণের পর অন্ত:সত্বা হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ওই ঘটনায় শ্রীপুর থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত ধর্ষক জহিরুল ইসলাম (৩৫) কে গ্রেপ্তার করেছে। জহিরুল শ্রীপুর পৌর এলাকার গিলারচালা গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসি জানায়, কিশোরীটি স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থী। সে মা-বাবার সাথে জহিরুল ইসলামদের জমিতেই ঘর তুলে বসবাস করে আসছিল। গত সাত মাস ধরে বিভিন্ন সময় কিশোরীটি বিদ্যালয়ে যাওয়া আসার পথে জহিরুল ইসলাম ভয়ভীতি দেখিয়ে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মৃত্যুর ভয়ে ভীত হয়ে কিশোরী এ ঘটনা চেপে যায়। পরে অন্ত:সত্বা হয়ে শারীরিক অবস্থার পরিবর্তন হলে তাঁর পরিবারের কাছে দুদিন আগে ঘটনাটি প্রকাশ পায়।

কিশোরীর মায়ের ভাষ্য, শারীরিক অবস্থার পরিবর্তন হয়ে অন্ত:সত্বার বিভিন্ন উপসর্গ প্রকাশ পেলে তাকে আমরা স্থানীয় ভাবে পরীক্ষা করানো হয় এবং তার অন্ত:সত্বার ঘটনাটি ধরা পরে। পরে তাঁর মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদে সে সব খুলে বলে। এ ঘটনা প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথেই জহিরুলের পরিবার থেকে আমাদের হুমকী দেয়া হয় এবং বাড়ি ছেড়ে দেয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করা হয়।
শ্রীপুর থানার ওসি মো. জাবেদুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় ছাত্রীর মা বাদি হয়ে রোববার রাতেই থানায় মামলা করেছেন।

পরে ধর্ষককে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।কিশোরীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।তবে গ্রেপ্তারে পর জহির ওই শিশুকে ধর্ষণের কথা অস্বীকার করেছে।
গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রণয় ভূষণ দাস বলেন, কিশোরীটি ২৮ সপ্তাহ অর্থাৎ প্রায় ৭মাসের গর্ভবর্তী।
###
মোঃ রেজাউল বারী বাবুল