জনগণ আওয়ামী ফ্যাসিবাদী দুঃশাসনের অবসান চায় সাইফুল হক

আপডেট: অক্টোবর ১২, ২০১৮

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ : বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও বাম গণতান্ত্রিক জোট এর কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক কমরেড সাইফুল হক বলেছেন, দমন নিপিড়নের পথে ক্ষমতাকে দীর্ঘায়ীত করার এবার আর কোন সুযোগ নেই। ইতোমধ্যেই সরকারের পায়ের নিচের মাটি অনেক দুর সরে গেছে, দেশের সর্বস্তরের জনগণ আজ এই আওয়ামী ফ্যাসিবাদী দুঃশাসনের অবসান চায়। আর তাই সরকারের বোধদয় হওয়া উচিত আর একটি একতরফা নির্বাচনের পায়তারা দেশের মানুষ কোনভাবেই বরদাস্ত করবেনা। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি মনোনীত প্রার্থী কমরেড মাহমুদ হোসেন এর নির্বাচনী প্রচারণার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন কালে শুক্রবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের পঞ্চম তলার মিলনায়তন কক্ষে অনুষ্ঠিত দলের কর্মী সমর্থক শুভানুধ্যায়ী ও দরদীদের অংশগ্রহনে অনুষ্ঠিত কর্মী সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন. রাষ্ট্রিয় ক্ষমতকে ব্যবহার করে আর একটি তামাশার নির্বাচন মঞ্চস্থ করার চেষ্টা করলে দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধভাবেই তা প্রতিরোধ করবে। জেলা কমিটির সভাপতি কমরেড মাহমুদ হোসেন এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, শ্রমজীবী নারী মৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক নারীনেত্রী রাশিদা বেগম, শহিদুল আলম নাননু, সাইফুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান আঙ্গুর, নাজমুল হাসান নাননু, রোকসানা বেগম, আইয়ুব আলী প্রমূখ।
কমরেড সাইফুল হক বলেন, জবরদস্তি পথে সরকারের ছক অনুযায়ী নির্বাচনী তৎপরতা কেবল সরকারের নয় পুরো দেশের জন্য এক ভয়াবহ পরিনতি ডেকে আনবে। জেদ-দম্ভ ও অহমিকা পরিহার করে অনতিবিলম্বে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ তদারকি সরকার গঠনে তিনি সরকারকে আহবান করেন।
শ্রমজীবী নারী মৈত্রীর সভাপতি নারীনেত্রী বহ্নিশিখা জামালী বলেন, সরকার প্রধান প্রতিপক্ষের উপর দমন-নিপীড়ন অব্যাহত রেখে এবং রাজনৈতিক নেতা কর্মীদের জেলে রেখে এবারও যেভাবে নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে চায় তা দেশে-বিদেশে কোন গ্রহণযোগ্যতা পাবে না। তিনি বলেন, সরকার যখন রাষ্ট্রীয় খরচে সরকারি দলের নির্বাচনী প্রচারণা অব্যাহত রেখেছে- তখন বিরোধীদলকে প্রতিদিন রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস মোকাবিলা করতে হচ্ছে। এটা কোন গণতন্ত্রই নয় এবং গণতান্ত্রিক পরিবেশও নয়।
বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য আবু হাসান টিপু বলেন, সরকারের বোধদয় খুবই জরুরি যে, বিগত ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মতো আরেকটি নির্বাচনের তকমা মঞ্চস্থের কোনো অবকাশ নেই। বাংলাদেশের কথিত উন্নয়নে দেশের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে নিয়মতান্ত্রিক পথে সরকার পরিবর্তনের সুযোগ নিশ্চিত করতে হবে। দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত না রাখলে আমাদের সকল অর্জন মুখ থুবড়ে পড়বে।
আবু হাসান টিপু আরও বলেন, একটি গ্রহনযোগ্য, সুষ্ঠু অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণার পূর্বেই সরকারকে পদত্যাগ করে বিদ্যমান সংসদ ভেঙ্গে দিতে হবে। সকল দল মতের অংশগ্রহনে নির্বাচনকালীন একটি তদারকি সরকার গঠন ও নির্বাচন কমিশন সংস্কার করে নির্বাচন অনুষ্ঠিত করলেই দেশবাসী সেই নির্বাচনে উৎসাহ দেখাবে।