টঙ্গীতে ছিনতাইকারীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ গুলিবিদ্ধসহ ৭ ছিনতাইকারী আটক, ৩ পুলিশ আহত

আপডেট: মার্চ ১১, ২০১৯
গাজীপুর সংবাদদাতাঃ গাজীপরের টঙ্গীতে পুলিশের সাথে ছিনতাইকারীদের সংঘর্ষে দুই ছিনতাইকারী গুলিবিদ্ধ ও তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। সোমবার ভোর রাতে ছিনতাইকারীরা আশুলিয়া এলাকায় ছিনতাই করে টঙ্গীর তিলারগাতি এলাকা দিয়ে পালানোর সময় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।পুলিশ গুলিবিদ্ধ দু‘জন সহ ৭ ছিনতাইকারীকে আটক করেছে।
সংঘর্ষে আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন টঙ্গী পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল হাসান, কনস্টেবল রাজ্জাক ও রফিক। তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
গুলিবিদ্ধ ২ ছিনতাইকারী জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার ফুলকারচর এলাকার শাহজাহান মিয়ার ছেলে মমিজ উদ্দিন (২৩) ও গাজীপুর মহানগরের বাসন থানার পালেরপাড়া এলাকার আব্দুস সাত্তারের ছেলে মোশারেফ হোসেনকে (৩৫) টঙ্গীর আহসান উল্লাহ জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে পুলিশ প্রহরায় ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
গ্রেপ্তারকৃত অপর ২ ছিনতাইকারী জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার কটাপুর বাজার এলাকার কামাল হোসেনের ছেলে আখলেছ (২০) ও গাজীপুর মহানগরীর কোনাবাড়ি থানার গোপালপুর এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে ইমরান (২২)।
টঙ্গী পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক জানান, ঢাকার আশুলিয়া বেড়িবাঁধ এলাকায় ছিনতাই করে পালানোর সময় রাত আনুমানিক পৌনে ৪ টার দিকে টঙ্গীর তিলারগাতি রোড এলাকায় টহল পুলিশ তাদের গতিরোধ করে।এসময়  ছিনতাইকারীরা উপ-পরিদর্শক (এসআই) হাসানের হাতে ছুরিকাঘাত করে পালানোর চেষ্টা করে। পুলিশ তাদের আত্মরক্ষার্থে  চার রাউন্ড গুলি করে ছিনতাইকারীকে আটক করে। ছিনতাইকারী সংঘর্ষে ধস্তাধস্তিতে এসময় আরো দুই কনস্টেবল  আহত হন। আটক ছিনতাইকারীদের  দেহ তল্লাশি করে ৪টি মোবাইল, একটি ল্যাপটপ, ২টি ছোড়া ও দুই হাজার দুই’শ ৪৭ টাকা উদ্ধার করা হয়।
এদিকে টঙ্গীতে দেশীয় অস্ত্রসহ রবিবার রাতে আরো তিন ছিনতাইকারীকে আটক করেছে টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশ। আটককৃতরা হলেন নেত্রকোণার সদরের সাতপাই এলাকার জানে উল্লাহর ছেলে ছোটন উল্লাহ (২৯), শেরপুর সদরের বাকরাকসার ইমতিয়াজ আলীর ছেলে মো বিপ্লব (৩০) ও লক্ষীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুর গ্রামের মৃত ইমাম হোসেনের ছেলে সাগর মিয়া (১৯)।
টঙ্গী পশ্চিম থানা ইন্সপেক্টর (অপারেশন) শহিদুর রহমান জানান, একদল ছিনতাইকারী গাজীপুরা ২৭ রোডের মাসকো গার্মেন্টসের সামনে আবস্থান করছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান চালানো করা হয়। এসময় ওই যুবকদের সন্দেহ হলে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতদের কাছ থেকে ছিনতাইকাজে ব্যবহৃত ৩টি চাইনিজ চাকু, একটি ক্রিস ও একটি দা উদ্ধার করা হয়।
পুলিশের ওই কর্মকর্তা আরো জানান, আটক ছিনতাকারীরা দীর্ঘদিন যাবত দলবদ্ধ হয়ে টঙ্গী ও তার আশপাশ এলাকায় ছিনতাই কাজে জড়িত। তারা বিভিন্ন গার্মেন্টসের বেতনের সময় সড়কের পাশে উঁৎ পেতে থাকে। গার্মেন্টস কর্মীরা বেতন নিয়ে বাসায় যাওয়ার পথে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে নিরীহ গার্মেন্টস শ্রমকিদের কাছ থেকে বেতনের টাকা হাতিয়ে নিত। না দিলে তাদেরকে জখম করে জোরপূর্বক টাকা ছিনিয়ে নিত। আটককৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
###
মোঃ রেজাউল বারী বাবকুল