ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার দায় স্বীকার করল ডিএনসিসি

আপডেট: জুলাই ৩, ২০১৯
0

ডেস্ক রির্পোট:
ডেঙ্গু পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতিতে হাইকোর্টের রুল জারির পর ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ- উভয় সিটি কর্পোরেশনের কর্তারা স্বীকার করেছেন, তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়েছেন এবং সমন্বয়ের অভাব রয়েছে। আর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্তা ব্যক্তিরা বলছেন, রোগী ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা বেড়েছে বলে এখন মৃত্যু কম হচ্ছে। কিন্তু তাদের কেউ ডাকেননি তাই তারা তাদের টেকনিকাল বা ফান্ড সহায়তা কাজে লাগাতে পারছেন না।

রাজধানীতে ব্যাপকমাত্রায় ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ দেখা দেয়ায় মশা নিয়ন্ত্রণে কার্যকর কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে তা জানতে চেয়ে হাইকোর্ট গতকালই ঢাকার দুই সিটি (উত্তর ও দক্ষিণ) করপোরেশনের মেয়র ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদেরকে এ বিষয়ে আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে আদালতে পৃথক দু’টি প্রতিবেদন দাখিল করে বলা হয়, তারা জনসচেতনতা বৃদ্ধিসহ ডেঙ্গু মশা নিয়ন্ত্রণে কার্যকর পদক্ষেপ নিয়েছে। ডেঙ্গু রোগের জীবানুবাহী এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে বিশেষ কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নেমেছে উভয় সিটি কর্পোরেশন।

এ প্রসঙ্গে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এ বি এম আব্দুল্লাহ বলেন, ‘মশা বংশবিস্তার প্রতিরোধ নেয়ার জন্য যেভাবে কাজ করার দরকার, এগুলো তারা পুরোপুরি করতে পারেনি। কিন্তু তারা নতুন ওষুধ এনেছে, কিন্তু তার আগেই তো ঘটনা ঘটে গেছে।’

এ ব্যাপারে দায় এড়ানোর সুযোগ নেই এমনটি স্বীকার করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমেনুর রহমান বলেছেন, ‘যেহেতু রোগী সংখ্যা বাড়ছে, ঘাটতি ছিল এটা তো অবশ্যই স্বীকার করতে হবে।’

ডিএসসিসি প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. শরিফ বলেন, মশা নিধন একটি চলমান প্রক্রিয়া। মৌসুমের বাকি সময়েও এই তৎপরতা অব্যাহত থাকবে।

তবে, গত সোমবার (০১ জুলাই) সকালে রাজধানীর মন্ত্রীপাড়ায় মশা নিধনে মাসব্যাপী ক্রাশ প্রোগ্রামের উদ্বোধন শেষে ঢাকা দক্ষিণের মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, ডেঙ্গু পরিস্থিতি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে, এ নিয়ে আতঙ্কিত হবার কিছু নেই।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যে জানা যায়- এ বছর জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত রাজধানীতে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজার ছাড়িয়েছে। গত জুন মাসে আক্রান্ত হয় ১৫৯৫ জন। এটা গত বছর জুনের আক্রান্তের সংখ্যার পাঁচগুণ। তবে এছর ডেঙ্গুতে এখন পর্যন্ত তিনজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।#

LEAVE A REPLY