ঢাকায় আসা পুলিশ সদস্যদের আর কষ্ট হবে না: আইজিপি

আপডেট: ডিসেম্বর ৩, ২০১৯
0

আদালতে সাক্ষ্য দেয়া কিংবা সরকারি কাজে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে রাজধানী ঢাকা শহরে আসা পুলিশ সদস্যদের স্বল্পকালীন
সময় থাকার জন্য তেজগাঁও থানা কমপ্লেক্সে ডরমিটরি নির্মাণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) এই ডরমিটরি উদ্বোধন করেন পুলিশের নতুন মহা-পরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী।

বাংলাদেশ পুলিশের ইতিহাসে এটি নতুন সংযোজন উল্লেখ করে আইজিপি বলেন, ‘বিসিএস পুলিশ অফিসার্সদের থাকার জন্য অফিসার্স মেস ব্যবহার করা হয়।
কিন্তু কনস্টেবল থেকে শুরু করে ইন্সপেক্টরগণসহ পুলিশের বড় একটি অংশ সাক্ষ্য দেওয়া বা অন্যকোনও সরকারি কাজে ঢাকা শহরে আসলে তাদের স্বল্পকালীন থাকার জন্য কোনও ডরমেটরি ছিল না।

এই ডরমেটরি নির্মাণ হওয়ায় এখন এই সমস্যা অনেকাংশে কমে যাবে। এতে তাদের কষ্ট অনেক লাঘব হবে।
১০ তলা ভীতের ওপর বর্তমান ৪ তলা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।’

আইজিপি আরও বলেন, ‘পুলিশের স্থাপনাগুলো ঊর্ধ্বমূখী সম্প্রসারণ করা অত্যন্ত জরুরি।
পুলিশের সকল স্থাপনা ঊর্ধ্বমূখী সম্প্রসারণের জন্য দ্রুত পরিকল্পনা প্রণয়নে জোর দিতে হবে।
সকল বিভাগীয় শহর ও জেলা শহরে এমন ডরমেটরি বানানোর উদ্যোগ নিতে হবে।

১০১টি থানা পুনঃনির্মাণ প্রকল্প নেয়া হয়েছিল এটি প্রায় শেষ পর্যায়ে। বাকী থানাগুলোও পর্যায়ক্রমে পুনঃনির্মাণ করা হবে।
এক্ষেত্রে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সদয় রয়েছেন। বাংলাদেশ পুলিশ মানবিক হয়ে জনগণের জন্য কাজ করবে এমন প্রত্যাশাও করেন তিনি।’

বাংলাদেশ পুলিশ ডরমেটরি নির্মাণ সম্পর্কিত তথ্য থেকে জানা যায়, ১০ তলা ভীতের ওপর প্রথম পর্যায়ে ৪ তলা আধুনিক সুবিধা সম্বলিত ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। ডরমিটরিতে রয়েছে পার্কিং সুবিধা, প্রতি তলায় সিঙ্গেল বেডের ৮টি রুম ও ডাবল বেডের ৮টি করে রুম রয়েছে।
এখানে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে সরকারি কাজে ঢাকায় আগত কনস্টেবল থেকে ইন্সেপেক্টর পদমর্যাদার পুলিশ অফিসার স্বল্পকালীন সময়ের জন্য নামমাত্র অনপেমেন্টে থাকতে পারবেন।

এ সময় র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) ড. বেনজীর আহমেদ, ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY