তফসিল ঘোষণার আগে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতে যাচ্ছে ইসি

আপডেট: অক্টোবর ১০, ২০১৮

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচন সংক্রান্ত সামগ্রিক পরিস্থিতির ব্যাপারে আলোচনা করতে পুরো কমিশন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সাক্ষাৎ চেয়ে চিঠি দিয়েছে।
নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের মাধ্যমে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি বঙ্গভবনে পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী।

তিনি বলেন, আগামী ২৮, ২৯ ও ৩০ অক্টোবরের যে কোনো একদিন রাষ্ট্রপতির কাছে সময় চাওয়া হয়েছে। তবে আমাদের সময় চাওয়ার চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে তার সময় কখন হবে। সুযোগ মতো তিনি আমাদেরকে জানাবেন। আমরা সেই অনুযায়ী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করব। তবে আশা করছি সেটা নভেম্বরের আগেই হবে।

এই নির্বাচন কমিশনার আরো বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতি ও তফসিলসহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সামগ্রিক বিষয়ে আমরা রাষ্ট্রপতিকে জানাতে চাই। আমাদের সামনে তো জানানোর মতো রাষ্ট্রপতি ছাড়া আর কেউ নেই। সাধারণত তফসিল ঘোষণার আগে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করা একটি রেওয়াজও বটে। মূলত নির্বাচন সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনা করতেই এই সাক্ষাতের জন্য সময় চাওয়া হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশন (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বে বাকি চার কমিশনার ওই সাক্ষাতের সময় উপস্থিত থাকবেন।

ইসির অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেসুর রহমান বলেন, একাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতির কাজ চলছে পুরোদমে। কমিশনও ইসি সচিবালয়ের কাছে সামগ্রিক প্রস্তুতির ব্যাপারে জানতে চেয়েছে। সেজন্য কমিশন সভার আহ্বান করা হয়েছে। সেদিন বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। তফসিল নিয়েও আলোচনা হতে পারে। না হলে পরে দ্রুতই আরো একটি কমিশন সভা অনুষ্ঠিত হবে তফসিল ঘোষণা নিয়ে। সেদিন হয়তো চূড়ান্তভাবে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করবে ইসি।

ইসি সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ৩১ অক্টোবর থেকে আগামী বছরের ২৮ জানুয়ারির মধ্যে সংসদ নির্বাচন সম্পন্ন করার আইনি বাধ্যবাধকতা আছে ইসির। সেজন্য নভেম্বরের প্রথম দিকে তফসিল ঘোষণা করতে পারে কমিশন। এরপর ডিসেম্বরের শেষ অবধি অথবা জানুয়ারির শুরুতে নির্বাচনের দিন ধার্য করতে চায় নির্বাচন কমিশন। সুতরাং নির্বাচনী প্রস্তুতি, তফসিল ঘোষণাসহ নির্বাচন সংক্রান্ত সমগ্র বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে চায় কমিশন। সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য রাষ্ট্রপতি কোনো পরামর্শও দিতে পারেন।
ইসি সূত্র আরো জানায়, আগামী ১৫ অক্টোবর প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বে ৩৬তম সভায় বসবে কমিশন। সেখানে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সব কাজের টুকিটাকি হিসাব থেকে শুরু করে যাবতীয় প্রস্তুতির অগ্রগতি সম্পর্কে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের কাছে জানতে চাইবেন কমিশনাররা। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে তফসিলসহ অন্য বিষয়গুলো নিয়ে ভাববে ইসি।