ধর্ষণ মামলা তুলে না নেওয়ায় গাজীপুরে বাড়ীতে ঢুকে কলেজ ছাত্রীকে মারধর

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮

গাজীপুর সংবাদদাতাঃ গাজীপুরে ধর্ষন মামলা তুলে না নেওয়ায় সোমবার দিবাগত রাতে বাড়ীতে ঢুকে এক কলেজ ছাত্রীকে মারধর করেছে আসামিরা। এঘটনায় মঙ্গলবার ওই ছাত্রী থানায় অভিযোগ করেছে।

ওই ছাত্রীর পিতা ও স্বজনরা জানান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের দক্ষিণ সালনা মোল্লাপাড়া এলাকার মোঃ নূর ইসলামের ছেলে মোঃ কাওসার ওই কলেজ ছাত্রীকে বিয়ের কথা বলে প্রেমের ফাঁদে ফেলে। এরপর গত ৭ জুন কাওসার ও তার কয়েকজন বন্ধু বিয়ের ব্যাপারে কথা আছে বলে কলেজ ছাত্রীকে বাড়ী থেকে ডেকে পার্শ্ববর্তী একটি বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে ওই বাড়ীর সামনে বন্ধুদের পাহাড়ায় রেখে কাওসার তাকে ধর্ষণ করে।

এসময় ধর্ষিতার কান্নাকাটির শব্দ পেয়ে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এলে কাওসার ও তার সঙ্গীরা পালিয়ে যায়। যাওয়ার সময় তারা কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষনের বিষয়টি গোপন রাখার জন্য হত্যার হুমকী দেয়। এঘটনায় ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী বাদী হয়ে গত ৯ জুন ওই কাওসার ও তার সহযোগী সবদুল আলীর ছেলে মোঃ আসাদুল, মোঃ আঃ ছাত্তারের ছেলে জনি, সোহেল এবং মোহাম্মদ আলীকে আসামি করে জয়দেবপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে গত ১৯ সেপ্টেম্বর এ মামলায় আদালতে চার্জশীট প্রদান করেন।

এদিকে মামলা দায়েরের পর থেকে আসামিরা মামলা তুলে নিতে বারবার হুমকি দিয়ে আসছিল। মামলা প্রত্যাহার না করায় এবং পুলিশ অভিযোগপত্র দেয়ার খবর শুনে ক্ষুব্ধ হয় আসামীরা। সোমবার সন্ধ্যায় কাওসারসহ আসামীরা ওই ছাত্রীর বাড়ী যায় এবং তাকে বেধড়ক মারধর করে।

শীঘ্রই মামলা প্রত্যাহার করা না হলে আসামীরা মামলার বাদী ওই ছাত্রীকে বড় ধরণের ক্ষতি করবে এবং জীবননাশের হুমকী দিয়ে চলে যায় বলে ওই ছাত্রীর বাবা অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় মঙ্গলবার দুপুরে গাজীপুর সদর থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছে ওই কলেজছাত্রী।
###
মোঃ রেজাউল বারী বাবুল