না’গঞ্জে তোলারাম ও মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীদের কল্যানে শামসুজ্জোহা ট্রাস্ট গঠনের ঘোষণা

আপডেট: ডিসেম্বর ১, ২০১৯
0

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জ সরকারী তোলারাম কলেজে অতীতে সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের নেতৃত্বে পরিচালিত হয়েছে এবং ভবিষ্যতেও তাঁর নেতৃত্বেই পরিচালিত হবে ঘোষণা দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। তবে শিক্ষার্থীদের ভালবাসার আহবানে সাড়া দিয়ে তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থীদের মাঝে তিনি বার বার যাবেন বলে কথা দিয়েছেন। আর নারায়ণগঞ্জ সরকারী মহিলা কলেজ এবং সরকারী তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য তিনি তাঁর বাবা স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা মরহুম এ.কে.এম শামসুজ্জোহার নামে একটি ট্রাস্ট গঠন করে দিবেন। যেখানে তিনি ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ট্রাস্টের নামে ৫ কোটি টাকার এফডিআর করে দিবেন। ওই ট্রাস্টের মাধ্যমে দুটি কলেজের শিক্ষার্থীদের কল্যানে সহযোগীতা প্রদান করা হবে। যেটি তাঁর ছোট ভাই সংসদ সদস্য শামীম ওসমান এবং নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল এর মাধ্যমে পরিচালিত হবে এবং ট্রাস্টটি গঠন করতে খালেদ হায়দার খান কাজল তাঁকে প্রস্তাব দিয়েছেন বলেও বক্তব্যে জানিয়েছেন সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান।
রোববার ১ ডিসেম্বর বেলা সাড়ে ১১টায় সরকারী তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরন ও কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যের সময় এমপি সেলিম ওসমান শিক্ষার্থীদের মঞ্চে ডেকে তাদের কাছ থেকে কলেজে বিদ্যমান সমস্যাবলী এবং তাদের দাবীর কথা শুনতে চান। এ সময় কয়েকজ শিক্ষার্থী চাষাঢ়ায় একটি ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ, চাষাঢ়া থেকে তোলারাম কলেজ পর্যন্ত যাতায়াতের রাস্তায় ফুটপাত নির্মাণ, তোলারাম কলেজে বির্তক ক্লাব প্রতিষ্ঠা এবং নারায়ণগঞ্জ কলেজের মত তোলারাম কলেজেও সাংস্কৃতি ও খেলাধূলার চর্চায় যথেষ্ট সুযোগ সুবিধা পেতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী রাখেন।
পরিপ্রেক্ষিতে এমপি সেলিম ওসমান বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এ দাবী গুলো আসারই কথা না। তারা খুব সুন্দর করে আমাদের দায়িত্ব গুলো বুঝিয়ে দিলেন। এসব কাজ আগেই হয়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু একজন সংসদ সদস্য সিটি কর্পোরেশন এলাকায় কাজ করতে গেলে অনুমোদনের প্রয়োজন হয়। নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক অস্থিরতার কারনে এখনো এসব সমস্যা গুলো সমাধান করা সম্ভব হয়নি। এসব সমস্যা সমাধানে সংসদ সদস্য ও সিটি কর্পোরেশনের সাথে আলোচনায় দ্রুত সমাধান করা সম্ভব। আমি আমার নির্বাচনী এলাকায় অবিস্থত ৫টি কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটি অনুষ্ঠান করতে চাই। সেখানে যদি তোমরা শিক্ষার্থীরা তোমাদের সমস্যা ও দাবী গুলো ভাল ভাবে তুলে ধরতে পারো এবং সেই আওয়াজ যদি প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত পৌছায় তাহলে আমার বিশ্বাস নারায়ণগঞ্জের শিক্ষার্থীদের আর কোন সমস্যা থাকবে না। সবার সহযোগীতা পেলে খুব দ্রুতই এমন একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।
শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, আমি আমার নির্বাচনী এলাকায় ব্যক্তিগত অর্থায়নে ৭টি আধুনিক স্কুল নির্মাণ করেছি। যেখানে সাইন্সল্যাব ও কম্পিউটার ল্যাব পর্যন্ত করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু দক্ষ লোকের অভাবে সেগুলো ব্যবহার করা যাচ্ছে না। জিনিস গুলো নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, আমি সরকারী তোলারাম কলেজ, মহিল কলেজ, নারায়ণগঞ্জ কলেজ, কদমরসুল কলেজ থেকে ৫’শজন ছেলে মেয়ে চাই। যারা ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোর দায়িত্ব নিতে পারবে। ওই স্কুল গুলোর শিক্ষার্থীদের সঠিক শিক্ষা গ্রহনে সহযোগীতা করতে পারবে যাতে তারা ভবিষ্যত এসব কলেজে এসে সারা বাংলাদেশে নারায়ণগঞ্জের মুখ উজ্জল করতে পারে।
শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে সেলিম ওসমান আরো বলেন, শুধু পুথিগত বিদ্যায় শিক্ষিত হলে চলবে না। তোমাদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। নিজের মেধাকে কাজে লাগাতে হবে। পাঠ্যপুস্তকের শিক্ষার পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষায় তোমাদের শিক্ষিত হতে হবে। সবাই ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার হবে এমন কথা না আবার সবাইকে চাকরি করবে এমনটিও নয়। কারগরি শিক্ষা গ্রহন করে তোমাদের নিজেদের আত্মনির্ভরশীল করে গড়ে তুলতে হবে। এজন্য তিনি কলেজ কর্তৃপক্ষকে কলেজে কারিগরি শিক্ষার উপর জোড় দেওয়ার অনুরোধ রাখেন।
তিনি আরো বলেন, সামনে বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী। আমি সকল কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে নারায়ণগঞ্জ এবং বন্দরে মাসব্যাপী বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকীর আয়োজন করতে চাই যাতে করে নারায়ণগঞ্জের এই অনুষ্ঠানটি সারা বাংলাদেশে স্মরনী হয়ে থাকে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের সহধর্মিনী মিসেস নাসরিন ওসমান বলেন, সরকারী তোলারাম কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা আজ অনেকেই সমাজে প্রতিষ্ঠিত। এমপি শামীম ওসমান ও কাজল এই কলেজেরই শিক্ষার্থী ছিলেন। তারা আজ প্রতিষ্ঠিত। তোমাদের তাদের থেকেও বেশি প্রতিষ্ঠিত হতে হবে। তোমরা মন দিয়ে লেখাপড়া করবে। পিতামাতা, শিক্ষক ও গুরুজনদের সম্মান করবে। কাউকে ছোট করে কথা বলবে না। সফল ব্যক্তিদের অনুকরন করবে তাহলে দেখবে তোমরা জীবনে অনেক বড় হবা, সমাজে তোমরা তাদের থেকেও বেশি প্রতিষ্ঠিত হয়ে উঠবে।
সরকারী তোলারাম কলেজের অধ্যক্ষ বেলা রানী সিংহ এর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের সহধর্মিনী মিসেস নাসরিন ওসমান, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, সরকারী তোলারাম কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর শাহ মো. আমিনুল ইসলাম। আরো উপস্থিত ছিলেন সরকারী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ বেদওয়ারা বিনতে হাবিব, নারায়ণগঞ্জ কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফজলুল হক রুমন রেজা, সরকারী তোলারাম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর শিরিন বেগম, অধ্যাপক জীবন কৃষ্ণ মোদক, শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন ভূইয়া সাজনু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হাসান নিপু, নারায়ণগঞ্জ সিটি কপোরেশনের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর শারমিন হাবিব বিন্নী। অনুষ্ঠানে সঞ্চালনা করেন তোলারাম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ।

এম আর কামাল
নারায়ণগঞ্জ

LEAVE A REPLY