না’গঞ্জে ভবন ধসের ৪৮ ঘণ্টা পর শিশু ওয়াজিদের লাশ উদ্ধার

আপডেট: নভেম্বর ৫, ২০১৯
0

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জ শহরের বাবুরাইল এলাকায় নির্মাণাধীন চারতলা একটি ভবন ধসে পড়ার ঘটনায় ৪৮ঘন্টা পর নিখোঁজ স্কুলছাত্র ইফতেখার আহমেদ ওয়াজিদের (১১) লাশ শনাক্ত করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।
৫ নভেম্বর মঙ্গলবার বেলা ২টায় ভবনের নিচতলার বারান্দা থেকে তার মৃতদেহ শনাক্ত করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আরেফিন জানান, ওয়াজিদের লাশ শনাক্ত করা হয়েছে উদ্ধারের কাজ চলছে।

রোববার (৩ নভেম্বর) বিকেলে মুন্সীবাড়ি এলাকার এইচ এম ম্যানশন ভবনটি ধসে পড়ে। ভবনটির মালিক মৃত আব্দুর রউফ মিয়ার ৪ সস্তান।
ঘটনা প্রসঙ্গে খালা রুনা বেগম এ প্রতিবেদকে বলেন, দুইজন সোহায়ের (নিহত) ও ওয়াজিদ (নিখোঁজ) আমার ঘরে কোরআন শরীফ পড়তেছিল। আমি বাইরে আসছিলাম। বাইরে থেকে দেখি বিল্ডিংয়ে সিঁড়ির কাছে ফাঁকা হয়ে গেছে।

আমি চিৎকার দিয়া বলি, সোহায়ের, ওয়াজিদ তাঁড়াতাড়ি বাইরে আয়। আমার চিৎকারে ওয়াজিদ বাইরে আসে কিন্তু সোহায়ের বারান্দায় আসে। বিল্ডিং হেলতে শুরু করলে ওয়াজিদ কোরআন শরীফ আনতে আবার ভিতরে দৌড় দেয়।

তখন আমিও ভিতরে দৌড় দিলে সিঁড়িতে এক পা দেওয়ার সাথে সাথে বিল্ডিং ভাইঙ্গা পরে। আমার গলা পর্যন্ত পানিতে ডুইবা গেছিল। বাইরে থেইকা আমারে টাইনা উঠাইছে। কিন্তু ওগো আর কোন খোঁজ আমি পাই নাই।
জানা যায়, বড় বোন রোজিয়া বেগমের বাবা হারা একমাত্র সন্তান মো. সোহায়ের (১২) এবং তাঁর ছোট বোন কাকলী বেগমের প্রথম সন্তান ইফতেখার আহমেদ ওয়াজিদ (১১) ছয় মাসের ছোট বড়। দুই ভাইকে কোরআন শিক্ষা পড়ানোর জন্য পাঠানো হতো অপর বোন রুনার বাসায়।

প্রতিদিনের মত গত ৩ নভেম্বর দুই ভাই নির্ধারিত সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় ৪তলা বিশিষ্ট খালার বাসায় গিয়ে পড়তে শুরু করে। প্রায় ৪টার দিকে খালা রুনা বাইরে থেকে দেখতে পান যে ভবনে ধসে পড়ছে। সাথে সাথে চিৎকার করে সবাইকে বেরিয়ে যেতে বলেন। কিন্তু কেউ বের হতে পারেনি।

LEAVE A REPLY