নুসরাত হত্যাকারী সিরাজ ও তার সহযোগীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে – আবু হাসান টিপু

আপডেট: এপ্রিল ১৩, ২০১৯
0

বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর অন্যতম সদস্য জননেতা কমরেড আবু হাসান টিপু, ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের সর্বোচ্চ সাজার দাঁবি জানিয়ে বলেছেন, খুন-ধর্ষণ এখন নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু আমরা আগাগোড়াই বিচারহীনতার সংস্কৃতিতে আবদ্ধ হয়ে আছি। তাই স্বভাবতই প্রশ্ন জাগে আর কত মৃত্যু হলে হত্যাকারীদের বিচারের ব্যবস্থা চালু হবে। তনু-খাদিজারা আজও বিচার পায়নি। একের পর এক হত্যাকাণ্ড ঘটেই চলেছে। অপরাধ সংগঠিত হওয়ার পর বিচার না হওয়া বা বিচারে দীর্ঘসূত্রতার কারণে অপরাধীরা ইদানিং আরও বেশী বেপরোয়া হয়ে উঠছে।

আবু হাসান টিপু আরও বলেছেন, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে লাইফ সাপোর্টে যাওয়ার আগে চিকিৎসকদের কাছে দেয়া নুসরাত জাহান রাফির বক্তব্য ও তার শোবার ঘরে পাওয়া চিঠি বলছে, রাফিকে পরিকল্পিতভাবে ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলা গং আগুন দিয়ে হত্যা করেছে। অথচ হত্যার দায় থেকে সিরাজকে বাঁচাতে অত্যন্ত নির্লজ্জভাবে স্থানীয় কতিপয় রাজনীতিবিদ ও পুলিশ সদস্য এখনও সক্রিয়।

তিনি বলেন, অপরাধিরা যেন আর অপরাধ করতে সাহস না পায় অন্তত্য এই কারণে হলেও অবিলম্বে এই ধর্মব্যবসায়ী নরপশু সিরাজ উদ দৌলাসহ ওর সকল চেলাচামুন্ডাকে সর্বোচ্চ দৃষ্টান্তমুলক সাস্তি প্রদান করতে হবে। এমনকি এই হত্যাকাণ্ডকে জায়েজ করতে যে সকল স্থানীয় রাজনীতিবিদ ও পুলিশ সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছে তাদেরকেও বিচারের আওতায় আনতে হবে।
১৩ এপ্্িরল শনিবার সকালে হাজীগঞ্জস্থ পার্টির অস্থায়ী কার্যালয়ে শ্রমিকনেতা আবুল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভাতে আবু হাসান টিপু এসব কথা বলেন।

সভাতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নারীনেত্রী রাশিদা বেগম, শ্রমিকনেতা হাবিবুর রহমান আঙ্গুর, মোক্তার হোসেন, আইয়ুব আলী, ইসমাইল প্রধান প্রমূখ।

LEAVE A REPLY