পা দিয়ে লিখে পিইসি পরীক্ষা দিচ্ছে হিজলার মুক্তামনি !

আপডেট: নভেম্বর ২৩, ২০১৯
0

পা দিয়ে লিখে পিইসি পরীক্ষা
দিচ্ছে হিজলার মুক্তামনি !
রাহাদ সুমন,বিশেষ প্রতিনিধি॥
পা দিয়ে লিখে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষা দিচ্ছে অদম্য শিশু মুক্তামনি (১২)। বিদ্যুৎস্পর্শে তার দুই হাত পুড়ে যাওয়ায় চিকিৎসকরা কাঁধের নিচ থেকে কচি হাত দুটো কেটে ফেলেন। মুক্তামনি যখন তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ত, তখন তার জীবনে নেমে আসে এমন মর্মান্তিক ট্র্যাজেডি। তবে শিক্ষায় তার প্রবল আগ্রহের কাছে পরাজিত হয়েছে শারীরিক

প্রতিবন্ধিতা। বরিশালের হিজলার পত্তণীভাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষা দিচ্ছে মুক্তামনি। সে একই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। পূর্ব পত্তণীভাঙ্গা গ্রামের সেন্টু সরদার ও ঝুমুর বেগমের মেয়ে মুক্তামনি। পত্তণীভাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধাান শিক্ষক নাসিমা বেগম জানান, মুক্তামনি কাটা হাত নিয়ে তার বিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণিতে ভর্তি হয়।ডান পায়ের আঙ্গুলের ফাঁকে কলম আটকে স্বাভাবিক গতিতে লিখতে পারে সে

। দরিদ্র পরিবারের সন্তান মুক্তা মনির মা ঝুমুর বেগম গামেন্টকর্মী। মুক্তামনির ছোট এক বোন রয়েছে। মুক্তা মনির বাবা সেন্টু সরদার তাদের তেমন খোঁজখবর নেন না বলে জানান ঝুমুর। তিনি বলেন, সন্তানদের নিয়ে ঢাকায় থাকতেন। হাত কেটে ফেলায় মুক্তামনি ডান পা দিয়ে লেখার অভ্যাস করে। নিজের সামান্য আয়ে দুই মেয়েকে পড়াশোনা করাতে কষ্ট হয়।

তারপরও মেয়েদের আগ্রহের কারণে পড়াশোনা চালিয়ে নিচ্ছেন। মেয়েদের উচ্চশিক্ষিত করতে তিনি মানবতার মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সহ সমাজের সহৃদয়বান বিত্তবানদের সহায়তা কামনা করেন।

মুক্তামনি ভবিষ্যতে আদর্শ শিক্ষক হয়ে ঘরে ঘরে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিয়ে জাতিকে সুশিক্ষিত সোনারমানুষ হিসেবে গড়ে তুলে সোনারবাংলা বিনির্মাণে ভূমিকা রাখতে চায়।###
রাহাদ সুমন,বানারীপাড়া

LEAVE A REPLY