বরিশালে এসপির বিরুদ্ধে ফের মামলা

আপডেট: জানুয়ারি ১৪, ২০২০
0

বরিশাল ব্যুরো: বরিশাল নগরীর পুলিশ লাইন্সে দি রিভার ক্যাফে চাইনিজ ও ফাস্টফুড রেষ্টুরেন্টের মাসিক ভাড়ার টাকা গ্রহণ না করে অধিকহারে জামানত নিয়ে তৃতীয় ব্যক্তিকে ভাড়া দেয়ায় লিপ্ত থাকা ও উৎখাতের হুমকী দেয়ার অভিযোগে বরিশাল পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার বরিশাল সদর সিনিয়র সহকারি জজ/বাড়ী ভাড়া নিয়ন্ত্রকের আদালতে প্রতিষ্ঠানের ভাড়াটিয়া মালিক বাপ্পী রঞ্জন রায় ২য় বারের মতো মামলাটি দায়ের করেন। আদালতের বিচারক মোঃ কাজী কামরুল ইসলাম মামলাটির আদেশ দানে পরবর্তী দিন ধার্য্যরে নির্দেশ দেন। মামলা পরিচালনাকারী আইনজীবী আজাদ রহমান জানান, ২০০৮ সালের ২৭ মার্চ ব্যবসায়ি বাপ্পী রঞ্জন রায় ভাড়াটিয়া প্রমিসেস ভাড়া নেয়ায় আগ্রহী হয়ে বরিশাল পুলিশ সুপারের সাথে ভাড়াটিয়া চুক্তি সম্পন্ন করেন। যার মেয়াদ ২০০৮ সালের ১ এপ্রিল থেকে ২০১৩ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত বলবৎ রাখা হয়। চুক্তি সম্পন্নের আগে ওই ভাড়াটিয়া প্রমিসেস উপর গণপূর্ত বিভাগের সহায়তায় একটি সেমিপাকা ক্যাফেটরিয়া নির্মাণ করা হয়। পরে বাপ্পী তার নিজ খরচে ডেকোরেশন, ফিনিসিং সম্পন্ন করেন। পরবর্তী সময়ে ক্যাফেটরিয়াটি আর্কষণীয় ও মানসম্পন্ন করতে আভ্যন্তরীন ফ্লোর টাইলস সংযোজনসহ পিছনের অংশে সংস্কারের প্রয়োজন দেখা দিলে বাপ্পী আগের অগ্রীম ১১ লাখ ৫৫ হাজার ৮৩৯ টাকার বাহিরে অতিরিক্ত ৪ লাখ ৮০ হাজার টাকা পুলিশ সুপারের অনুমতিতে ব্যয় করেন। ওই টাকা ব্যয় করার প্রেক্ষিতে চুক্তির মেয়াদ ২০১৩ সালের ৩১ মার্চের পরিবর্তে ২০১৮ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়। এছাড়া পুলিশ সুপারের সাথে বাপ্পীর সুসম্পর্ক থাকায় ২০১৩ সালের ৩ অক্টোবর অতিরিক্ত ভাড়াটিয়া চুক্তিপত্রের মাধ্যমে চুক্তির মেয়াদ ২০২৮ সালের ৪ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়িয়ে দেয়া হয়। বর্তমানে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাথে কর্মকর্তা কর্মচারীসহ প্রায় ১০০ জনের জীবন জীবিকা জড়িত রয়েছে। বাপ্পী রঞ্জন রায় নিয়মিত ভাড়াটিয়া প্রমিসেসের ভাড়া পরিশোধ করে আসছে। কিন্তু পুলিশ সুপার গত বছরের অক্টোবর ও নভেম্বর মাসের ভাড়াটিয়া রশিদ প্রদান করেন নাই। বাপ্পী রঞ্জন রায় পুলিশ সুপারের কাছে ভাড়ার রশিদ চাইলে তিনি জানান রশিদ বই নাই। প্রেস থেকে ছাপানো বই আসলে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে দস্তখতযুক্ত রশিদ দিবেন। কিন্তু পুলিশ সুপার গত ডিসেম্বর মাস থেকে ভাড়ার টাকা গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানান। ভাড়ার না নেয়ার প্রেক্ষিতে বাপ্পী রঞ্জন রায় ডিসেম্বর মাসের ভাড়া ৪৫ হজার টাকা গত ৫ জানুয়ারী মানি অর্ডারের মাধ্যমে পাঠিয়ে দেন। তবে পুলিশ ভাড়ার টাকা গ্রহণ না করে তা মানি অর্ডার যোগে ফেরত পাঠিয়ে দেন। পুলিশ সুপার বর্তমানে বিরোধীয় ভাড়াটিয়া প্রেমিসেস হতে বাপ্পী রঞ্জন রায়কে জোর পূর্বক নামিয়ে ৩য় ব্যক্তির কাছ থেকে অধিকহারে জামানত নিয়ে প্রমিসেস অন্যত্র ভাড়া দেওয়ার পায়তারায় লিপ্ত থেকে ভাড়াটিয়া প্রমিসেসের ভাড়ার টাকা গ্রহণ না করে এবং তাকে উৎখাত করার জন্য গত ১২ জানুয়ারী হুমকি প্রদান করেন। পুলিশ সুপার কুটকৌশল অবলম্বন করে অহেতুকভাবে, মিথ্যার আশ্রয়ে নিয়ে বাপ্পী রঞ্জন রায়কে হেভিচ্যুয়াল ডিফলটার বানানোর পায়তারায় লিপ্ত আছেন। এঘটনায় বাপ্পী রঞ্জন রায় আদালতের মাধ্যমে নিয়মিত ভাড়া জমা প্রদান করতে না পারিলে তার অপূরণীয় ক্ষতি হবে। এঘটনায় গতকাল মামলাটি দায়ের করলে বিচারক ওই নির্দেশ দেন।

মো: আরিফ হোসেন

LEAVE A REPLY