বাংলা নববর্ষের প্রথম রাতে গাজীপুরে অগ্নিকান্ড তুলার গোডাউন ও ঝুটের ১৫টি গোডাউন পুড়েছে

আপডেট: এপ্রিল ১৪, ২০১৯

গাজীপুর সংবাদদাতাঃ গাজীপুরে বাংলা নববর্ষের প্রথম রাতে (শনিবার) পৃথক দু’টি অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে কেয়া স্পিনিং মিলের তুলার একটি গোডাউন এবং ঝুটের ১৫টি গোডাউন ও মালামাল পুড়ে গেছে।

জয়দেবপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ইন্সপেক্টর ও কোনাবাড়ি থানার ওসি এমদাদ হোসেনসহ স্থানীয়রা জানান, গাজীপুর সিটে কর্পোরেশনের কোনাবাড়ি এলাকাস্থিত কেয়া স্পিনিং মিলের একটি তুলার গুদামে শনিবার দিবাগত রাত ১১ টার দিকে অগ্নিকান্ডের সূত্রাপাত হয়। মুহুর্তেই আগুন টিনশেডের ওই গুদামে ছড়িয়ে পড়ে ভয়াবহ আকার ধারণ করে। ঘটনার সময় ওই গুদামটি তালাবদ্ধ ছিল। স্থানীয়রা আগুন নেভানোর চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়। খবর পেয়ে জয়দেবপুর, সাভার ইপিজেড ও ডিবিএল ষ্টেশনের ফায়ার সার্ভিসের ৭টি ইউনিটের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে।

তারা সোয়া এক ঘন্টা চেষ্টার পর রাত সোয়া ১২টার দিকে আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হলেও পুরো নিয়ন্ত্রণে আসেনি। তবে আগুন পুরোপুরি নেভাতে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা রাতে কাজ করছিল। বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিট থেকে অগ্নিকান্ডের এ ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। আগুনে ওই তুলার গোডাউন ও মালামাল পুড়ে গেছে এবং ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক মনোরঞ্জন সরকার জানান, একই রাত ৯টার দিকে একই থানার দেউলিয়াবাড়ি এলাকাস্থিত একটি ঝুটের গোডাউনে আগুনের সূত্রাপাত হয়। মুহুর্তেই আগুন পার্শ্ববর্তী আলমগীর, সোহেল, আয়নাল ও রতনসহ ১০জন মালিকের অপর ১৪টি গোডাউনে ছড়িয়ে পড়ে ভয়াবহ আকার ধারণ করে। স্থানীয়রা আগুন নেভানোর চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়।

খবর পেয়ে কালিয়াকৈর, জয়দেবপুর, সাভারের ইপিজেড ও ডিবিএল ষ্টেশনের ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিটের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে। তারা তিন ঘন্টা চেষ্টার পর রাত ১২টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে আগুন পুরোপুরি নেভাতে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করছিল। আগুনে ঝুটের ১৫টি গোডাউন ও মালামাল পুড়ে গেছে এবং ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে অগ্নিকান্ডের সঠিক কারণ জানা যায় নি।
###
মোঃ রেজাউল বারী বাবুল