বানারীপাড়ায় ঐতিহ্যবাহী ২২৪তম সূর্যমনি মেলা ধরে রেখেছে গ্রামীণ লোকসংস্কৃতি

আপডেট: মার্চ ১৪, ২০১৯

 

রাহাদ সুমন,বিশেষ প্রতিনিধি॥বানারীপাড়া উপজেলার বেতাল গ্রামে ঐতিহ্যবাহী ২২৪তমসূর্যমনি মেলা ধরে রেখেছে গ্রামীণ লোক সংস্কৃতি। প্রতিবছরের মাঘি পূর্ণিমার শুকলা তিথিতে মাস ব্যপী এ মেলারআয়োজন করা হয়। কথিত রয়েছে ২২৪ বছর আগে বেতাল গ্রামের ৮০দশকের বানারীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মরহুম
খবির উদ্দিন মোল্লার পূর্ব পুরুষদের সম্পত্তি চাষ করতে ছিলোসনাতন ধর্মের কতেক কৃষক। ওই সময়ে কৃষকের লাঙ্গলের ফলায় কিছুএকটা বেধে চাষ বন্ধ হয়ে যায়। পরে কৃষকেরা যে জায়গায় তাদের লাঙ্গলের ফলা আটকে গিয়েছিলোসেই জায়গার মাটি খুঁড়ে সূর্যাকৃতির একটি মূর্তি পায়।ওইদিনই এলাকার সনাতন ধর্মাবলম্বীরা খবির উদ্দিন মোল্লার পূর্বপুরুষদের কাছে সূর্য মুর্তি পাওয়ার স্থানে একটি মন্দিরনির্মাণ করার অনুমতি চায়। ওই সময়ে উপজেলার প্রায় জায়গাইহিন্দু অধ্যুষিত হওয়ায় তাদের কথায় না করতে পারেনি এই মোল্লাপরিবার। মুর্তি পাওয়ার পরের বছর থেকেই সনাতন ধর্মের লোকেরা ওইস্থানে সূর্য পূজা দেওয়ার মধ্য দিয়ে সূর্যমনি নাম করণ করেমাস ব্যপী মেলার আয়োজন করে আসছে। গ্রামীণ লোক সংস্কৃতি ধরে রাখতে মেলা আয়োজক কমিটিযাত্রাপালার মাধ্যমে মঞ্চ নাটকের ব্যবস্থা করে থাকেন প্রতি বছর। যে মঞ্চনাটকের মধ্যদিয়ে সমাজের অনেক ভালা ও খারাপ দিক ফুটে ওঠে। মেলায়যাত্রপালা করা চৈতুলী ও অরন্য অপেরার শিল্পিরা জানান,আমরাই বাংলারএক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ঘুরে ঘুরে গ্রামীণ লোক সংস্কৃতিধরে রেখেছি। লোক সংস্কৃতি ধরে রাখতে গিয়ে আমাদের ওপরে অনেকসময় ঘাত প্রতিঘাত আসে। তবুও এই শিল্পকে ও গ্রামীণ লোকসংস্কতি বাঁচিয়ে রেখে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে আমরা কাজকরে যা”ি