বিএফইউজে ও ডিইউজে’র বিবৃতি চ্যানেল নাইনে গণচাকরিচ্যুতির ঘটনায় ক্ষোভ-উদ্বেগ

আপডেট: মার্চ ৬, ২০১৯

 

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল নাইন এর বার্তা বিভাগ আকস্মিকভাবে বন্ধ ঘোষণা করে গণচাকরিচ্যুতির ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন-ডিইউজে’র নেতৃবৃন্দ। বিএফইউজে’র সভাপতি রুহুল আমিন গাজী ও মহাসচিব এম আবদুল্লাহ এবং ডিইউজে’র সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ শহিদুল ইসলাম এক যুক্ত বিবৃতিতে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার জন্য চ্যানেল নাইন কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, চ্যানেল নাইন কর্তৃপক্ষ কোন উপযুক্ত ও যুক্তিসংগত কারণ উল্লেখ না করেই বার্তা বিভাগ সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেওয়ার যে নোটিশ জারি করেছেন তা অনাকাঙ্খিত ও অনভিপ্রেত। একটি গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানে বার্তা বিভাগে কেবলমাত্র প্রধান কার্যালয়ে নিয়োজিত সাংবাদিকই নন, সারা দেশে মহানগর, জেলা, উপজেলা পর্যায়ে অনেক সংবাদকর্মীরা নিয়োজিত থাকেন। বার্তা বিভাগ চালু ছিল বলেই অনেক প্রতিষ্ঠান থেকে চাকরি ছেড়ে সাংবাদিকরা এ প্রতিষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন। এখন তারা কোথায় গিয়ে দাঁড়াবেন? হঠাৎ এমন কি ঘটলো যে সংবাদ সম্প্রচার পুরোপুরি বন্ধ ঘোষণার সিদ্ধান্ত নিতে হলো? বহু সংখ্যক সংবাদকর্মীর রুটি রুজির সঙ্গে সম্পৃক্ত বিষয়ে মালিকের খেয়ালিপনা ও একতরফা সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া যায় না। আমরা এ হঠকারি সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে গণচাকরিচ্যুতির আদেশ প্রত্যাহার, সাংবাদিকদের ন্যায্য পাওনা পরিশোধ ও বার্তা বিভাগ চালু রেখে কয়েকশ’ সাংবাদিককে বেকারত্বের হাত থেকে রক্ষার জোর দাবী জানান।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি