ব্রিটিশ কাউন্সিলকে সহযোগিতা করলে বিচার হবে: ইরানের গোয়েন্দা মন্ত্রণালয়

আপডেট: নভেম্বর ৬, ২০১৯
0

ইরানের গোয়েন্দা মন্ত্রণালয় বলেছে, দেশটির কোনো নাগরিক ব্রিটিশ কাউন্সিলকে সহযোগিতা করলে আইন অমান্য করার দায়ে তার বিচার করা হবে।

ইরান-বিরোধী গুপ্তচরবৃত্তির কাজে ব্রিটিশ কাউন্সিলকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে লন্ডন। ইরানের গোয়েন্দা মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, বিশ্বের বহু দেশে হস্তক্ষেপ ও গুপ্তচরবৃত্তির নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার ইতিহাস ব্রিটেনের রয়েছে।

এবার ব্রিটিশ কাউন্সিলের মাধ্যমে সাংস্কৃতিক তৎপরতা চালানোর নামে ইরানে গুপ্তচরবৃত্তির পরিকল্পনা করেছিল ব্রিটেন। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কিন্তু ইরানের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো সঠিক সময়ে পদক্ষেপ নেয়ায় ব্রিটিশ সরকারের সে ষড়যন্ত্র নস্যাত হয়ে গেছে।

ব্রিটিশ কাউন্সিল নিজেকে যুক্তরাজ্যের সাংস্কৃতিক ও শিক্ষা বিষয়ক কার্যক্রমের অংশীদার বলে দাবি করে। কিন্তু বিশ্বের বহু দেশ জানে, ব্রিটেনের পররাষ্ট্রনীতি বাস্তবায়নের হাতিয়ার হিসেবে কাজ করে ব্রিটিশ কাউন্সিল।

ব্রিটিশ কাউন্সিলের ওয়েবসাইট বলছে, ইরানে তাদের কোনো দপ্তর নেই। কিন্তু বাস্তবে ইরানে গুপ্তভাবে লোক নিয়োগ দিয়েছে ওই কাউন্সিল। এরইমধ্যে ইরানের গোয়েন্দা নেটওয়ার্কের কাছে ধরা পড়েছে ব্রিটিশ কাউন্সিলের এক নারী কর্মী। আদালতে তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

ইরান বহু বছর যাবত বলে আসছিল যে, ব্রিটিশ কাউন্সিল ইরানের চৌকস নাগরিকদেরকে তাদের কর্মী হিসেবে নিয়োগ দিয়ে এদেশে গুপ্তচরবৃত্তি চালায়।নিয়োগ পাওয়া কর্মীরা সরাসরি ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থা এমআইসিক্সের পক্ষে কাজ করে।ব্রিটিশ কাউন্সিলের একজন নিয়োগ পাওয়া কর্মী ধরা পড়ায় তেহরানের সে ধারনা সঠিক বলে প্রমাণিত হয়েছে। তেহরান বলেছে, এখন থেকে আর কারো বিরুদ্ধে ব্রিটিশ কাউন্সিলের সঙ্গে সম্পর্ক রক্ষা করার অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।#

LEAVE A REPLY