ভিডিওর ভয় দেখিয়ে ছাত্রীকে লাগাতার ধর্ষন করলো আ’লীগ নেতার ছেলে

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৭

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে এক নবম শ্রেনীর ছাত্রীকে জোড় করে ধর্ষণ করার অভিযোগ বাংলাদেশের শাসকদল আওয়ামি লিগের নেতার ছেলের বিরুদ্ধে। এখানেই শেষ নয়।

নেতার ছেলে ধর্ষণের ভিডিও নিজের মোবাইল ফোনে তুলে রেখে স্কুল ছাত্রীকে ভিডিওর ভয় দেখিয়ে কয়েকমাস ধরে লাগাতার ধর্ষণ করে বলে ছাত্রীটির অভিযোগ। এমনকি ললসার শিকার ছাত্রীটি এখন পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। অভিযুক্ত আওয়ামি লিগের সখীপুরের একটি ইউনিয়নের ওয়ার্ড সভাপতির ছেলে লিটন আহাম্মেদ পলাতক।
স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের সূত্রের খবর, নির্যাতিতা পুলিসকে জানায়–চলতি বছরের ফেব্রুয়ারির ২৮ তারিখ বিকাল বেলায় লিটনের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিল।

বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে নিয়ে লিটন একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে জোর করে ধর্ষণ করে।

ছাত্রীটির অপ্রীতিকর মুহূর্তের ছবি মোবাইল ফোনে ছবি ও ভিডিও তুলে রাখে লিটন। ধর্ষণের কথা কাউকে জানালে ভিডিওটি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ও বাবা-মাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয় শাসক দলের নেতার ছেলে লিটন। নির্যাতিতা আরও জানায়, এই ভিডিওর ভয় দেখিয়ে কয়েক মাস ধরে চলতে থাকে লাগাতার ধর্ষণ। এর ফলে ছাত্রীটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। শুক্রবার নির্যাতিতার পরিবার সখীপুর থানায় আওয়ামি লিগের সভাপতির ছেলে লিটন আহাম্মেদ বিরুদ্ধে মামলা করেন। লিটন আহম্মেদের বাবা মুক্তিযোদ্ধা ও কালিয়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামি লিগের সভাপতি মতিয়ার রহমান।
ছাত্রীটির পরিবারের অভিযোগ, থানায় মামলা করার পর থেকে নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য।
সখীপুর থানার তদন্তকারী অফিসার স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে জানায়, অভিযুক্ত লিটন আহম্মেদকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করা হচ্ছে। শনিবার মেয়েটির স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। পাশাপাশি বিচারকের কাছে গোপন জবানবন্দী নেওয়া হবে শনিবার।

সূত্র: আজকাল