ভোট চুরির মূল হোতাই হচ্ছেন সিইসি : বিরোধী দলের কাছে তার কোন গ্রহণযোগ্যতা নেই- বিএনপি

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৯
file photo

ভোট চুরির মূল হোতাই হচ্ছেন সিইসি কে এম নুরুল হুদা ৤ বিরোধী দলের কাছে তার কোন গ্রহণযোগ্যতা নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ৤

রিজভী বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেছেন, রাজনৈতিক দলগুলো নির্বাচনে অংশ না নেয়া কমিশনের জন্য অস্বস্তিকর। সিইসি তাঁর এই বক্তব্যে স্বীকার করে নিলেন যে, জনগণ ও দেশের রাজনৈতিক দলগুলোর নিকট তাঁদের কোন গ্রহণযোগ্যতা নেই। যেদেশে ভোটের আগের রাতেই ব্যালট পেপারে সীল মেরে ব্যালট বাক্স ভর্তি করা হয়, ভোট চুরি হয়, ভোট দিতে পারে না সেদেশের মানুষ বর্তমান নির্বাচন কমিশন ধিক্কার ছাড়া অভিনন্দন পাওয়ার যোগ্য নয়। তিনি জনগণকে ভোট প্রদান থেকে প্রতারিত করেছেন। তাঁর আজ্ঞাবহ জীবনদর্শণের জন্য গণতন্ত্র এখন রাহুগ্রস্ত। ৩০ ডিসেম্বরে ভোট চুরির মহৌৎসব করে একটা অবৈধ শাসকগোষ্ঠীকে রাষ্ট্রক্ষমতায় বসিয়ে দেশকে গভীর সংকটে নিপতিত করার মূল হোতাই হচ্ছেন সিইসি কে এম নুরুল হুদা। কাজেই জনগণ এবং রাজনৈতিক দলগুলো এখন নির্বাচন কমিশন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে।

ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সভাপতি রাজিয়া আলিম কারাগারে প্রচন্ড অসুস্থ। আদালত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে বললেও জেল কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এছাড়া ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) ৩১, ৩২ ও ৩৩ নং ওয়ার্ড কমিশনার এবং জাতীয়তাবাদী মহিলা দল লালবাগ-চকবাজার থানা শাখার সদস্য সচিব নাসরিন রশীদ পুতুল বহুদিন ধরে কারাগারে আটক আছেন। তিনিও ভীষণ অসুস্থ। আমি অবিলম্বে তাদের সুচিকিৎসা এবং মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি করছি।
এছাড়া ঢাকা মহানগর এর নেতৃবৃন্দের মধ্যে কারান্তরীণ
আব্দুল আলীম নকী, সহ-সভাপতি-ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি
আলহাজ¦ মোয়াজ্জেম হোসেন, সহ-সভাপতি-ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি
আশরাফুর রহমান আশরাফ, যুগ্ম সম্পাদক-ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি
আরিফুর রহমান নাদিম, যুগ্ম সম্পাদক-ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি
ডি এম নজরুল, যুগ্ম সম্পাদক-ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি
রেজাউল করিম ফাহিম, সহ-সাধারণ সম্পাদক-ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি
ভিপি মো: হানিফ, প্রচার সম্পাদক-ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি
এ বি এম এ রাজ্জাক, দপ্তর সম্পাদক-ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি
কিরণ, যুগ্ম সম্পাদক-ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি
গোলাম কিবরিয়া মাখন, সভাপতি-ভাষানটেক থানা বিএনপি
আবুল কালাম আজাদ, সভাপতি-বনানী থানা বিএনপি
আক্তার হোসেন জিল্লু, সভাপতি-কাফরুল থানা বিএনপি
আব্দুল আউয়াল, সভাপতি-রুপনগর থানা বিএনপি
মো: ওসমান গনি শাহজাহান, সভাপতি-মোহাম্মদপুর থানা বিএনপি
মো: নাসির উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক-আদাবর থানা বিএনপি
ইঞ্জিনিয়ার মজিবুল হক, সাধারণ সম্পাদক-রুপনগর থানা বিএনপি
মিজানুর রহমান বাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক-বনানী থানা বিএনপি
আবুল হোসেন আব্দুল, সভাপতি-মিরপুর থানা বিএনপি
হাজী ওয়াজেদ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক-মিরপুর থানা বিএনপি
হাজী আব্দুর রহমান, সভাপতি-দারুস সালাম থানা বিএনপি
হুমায়ুন কবির রওশন, সাধারণ সম্পাদক-শাহ আলী থানা বিএনপি
আব্দুর রশীদ, সাধারণ সম্পাদক-ক্যান্টনমেন্ট থানা বিএনপি
মো: দ্বীন ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক-গুলশান থানা বিএনপি
হাজী দুলাল, সভাপতি-উত্তরা পশ্চিম থানা বিএনপি
এ কে এম লুৎফুল বারী মুকুল, সহ-সভাপতি, মিরপুর থানা বিএনপি
হুমায়ুন কবির, সাংগঠনিক সম্পাদক-দারুস সালাম থানা বিএনপি
মো: আমির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক-ভাষানটেক থানা বিএনপি
মো: মাসুম বাবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক-আদাবর থানা বিএনপি
মো: নাজিম উদ্দিন দেওয়ান, দক্ষিণখান থানা বিএনপি নেতা
মো: শফিকুর রহমান শফিক, সহ-সভাপতি-ভাষানটেক থানা বিএনপি
মো: হাশেম মিয়া, বিএনপি নেতা-তেজগাঁও থানা বিএনপিসহ কারাগারে আটক নেতাকর্মীদের অবিলম্বে নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি করছি।