মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ’র যৌথ বিবৃতি

আপডেট: নভেম্বর ১৭, ২০১৮

খুলনা ব্যুরোঃ
খুলনা মহানগর বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ এক যৌথ বিবৃতিতে উল্লেখ করেছেন, নগরীর বিভিন্ন থানায় ১৮টি গায়েবী মামলায় আটক ১৫৯ জন নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে গত ৩দিনে প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ৩ থেকে ৫টি মামলায় শ্যোন এ্যারেস্ট দেখিয়ে নেতা-কর্মীদের মুক্ত করার পথ রুদ্ধ করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে।

এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দ।

গতকাল শুক্রবার বিবৃতিতে আরো বলা হয়, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনে অংশগ্রহণ ও গণতন্ত্র পূনপ্রতিষ্ঠার আন্দোলন বাধাগ্রস্থ করতে সরকার পুলিশকে ব্যবহার করছে।
নতুন করে আরো একটি গায়েবী মামলার অস্তিত্ব পেয়েছে নগর বিএনপি।
সবমিলিয়ে গায়েবী মামলার সংখ্যা দাড়িয়েছে ১৯টি। নেতৃবৃন্দ রিটার্নিং অফিসার ও পুলিশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে গায়েবী মামলা দায়ের বন্ধ ও শ্যোন এ্যারেস্টের মাধ্যমে হয়রানী প্রক্রিয়া বন্ধ এবং সকলকে সমান সুযোগ-লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির দাবি জানান।

বিএনপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে গোয়েন্দা নজরদারী বন্ধসহ বিএনপি নেতা-কর্মীদের ভয়-ভীতি প্রদর্শন থেকে নির্বৃত থাকার আহ্বান জানানো হয়। বিবৃতিতে আটক ১৫৯ নেতাকর্মীর মুক্তি, ১৯ মামলার কার্যক্রম বন্ধ রেখে শান্তিপূর্ণ ভীতিহীন পরিবেশ তৈরির আহ্বান জানানো হয়।

বিবৃতিদাতারা হলেন, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এম নুরুল ইসলাম দাদু ভাই, সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, কাজী সেকেন্দার আলী ডালিম, সৈয়দা নার্গিস আলী, মীর কায়সেদ আলী, শেখ মোশারফ হোসেন, জাফরউল্লাহ খান সাচ্চু, জলিল খান কালাম, সিরাজুল ইসলাম, ফখরুল আলম, এ্যাড. ফজলে হালিম লিটন, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, শেখ আমজাদ হোসেন, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সিরাজুল হক নান্নু, ইকবাল হোসেন খোকন, আসাদুজ্জামান মুরাদ প্রমুখ। #