যুক্তরাষ্ট্রে বোম্ব সাইক্লোন’র আঘাত, ১৩০০ ফ্লাইট বাতিল

আপডেট: মার্চ ১৫, ২০১৯

শীতের শেষে আছড়ে পড়লো ভয়ঙ্কর ঝড়। গতকাল বুধবার রাতে যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানল ‘বোম্ব সাইক্লোন।’ যার জেরে অন্তত ১৩০০ ফ্লাইট বাতিল করেছে দেশটিতে। জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে কলোরাডোতে।

ফ্লোরিডা, জর্জিয়া, দক্ষিণ ক্যারোলিনার একাংশে বুধবার রাত থেকেই শুরু হয়েছে ঝড়ের তাণ্ডব।

ডেনভার, কানসাসে ইতোমধ্যেই বন্ধ দোকানপাট, স্কুল-কলেজ। উপকূলবর্তী অঞ্চলে ৫০ থেকে ৮০ মাইল প্রতি ঘণ্টা বেগে বইছে ঝোড়ো বাতাস। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলছে তুষারপাত। আগামী অন্তত তিন দিন এই ঝড়ের প্রভাব থাকবে বলে জানা গেছে।

যখন ব্যারোমেট্রিক প্রেসার ২৪ মিলিবারের নিচে নেমে যায় ২৪ ঘণ্টার মধ্যে, তাকেই ‘বোম্ব সাইক্লোন’ বলে থাকেন আবহাওয়াবিদরা। জারি করা হয়েছে অ্যাক্সিডেন্ট অ্যালার্টও। রাস্তায় দুর্ঘটনার খবরও আসছে।

তুষারঝড়ের কারণে পাঁচ থেকে আট ইঞ্চি পুরু বরফের স্তর জমতে পারে বলে জানিয়েছেন আবওহাওয়াবিদেরা।

সে ক্ষেত্রে ২৪ ঘণ্টায় স্বাভাবিকের চেয়ে ২৪ মিলিবারেরও বেশি কমতে পারে বায়ুচাপ। উত্তরের ঠান্ডা হাওয়া এবং মধ্য আটলান্টিক থেকে আসা অপেক্ষাকৃত উষ্ণ হাওয়ার সংঘাতে এই ঝঞ্ঝার উৎপত্তি।

এখন সেটা ক্রমশ পূর্ব উপকূল বরাবর উত্তর দিকে উঠে আসছে। আবহাওয়া দফতর প্রবল ঠান্ডার ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছে। বৃহস্পতিবার রাত থেকেই তাপমাত্রা আরও কমে যাওয়ার আশঙ্কা। মধ্য নিউ জার্সি, ফিলাডেলফিয়ায় বইবে প্রবল ঠান্ডা হওয়া (উইন্ড চিল)। শুক্র এবং শনিবারেও তাপমাত্রা থাকবে হিমাঙ্কের ১৫ ডিগ্রি নীচে।

প্রশাসন জানিয়েছে, বুধবার রাতে ধেয়ে আসা এই সাইক্লোনের জেরে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন হয়ে রয়েছে নানা জায়গায়। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকাল থেকে তুষারঝড়ে আমেরিকার অধিকাংশ এলাকায় মানুষ গৃহবন্দি হয়ে রয়েছেন। নর্থগ্লেন, কলোরাডোতে রাস্তাঘাটে বড় বড় গাছ উপড়ে পড়ে রয়েছে, সেই ছবি টুইট করেছে পুলিশ।