রবীন্দ্রনাথের ‘হৈমন্তী’র স্বপ্ন

আপডেট: এপ্রিল ২০, ২০১৯
0

ঝরে শেষে বদলে গেছে কত স্বপ্ন
… সাইফ আলী

নাম রেখেছি ‘নন্দিনী’।
অন্তর অফোঁটা কলির বৃন্ত- শুভ্র পবিত্র,
রবীন্দ্রনাথের ‘হৈমন্তী’!
তাঁকেও বোধহয় ছাপিয়েছে নিভৃতে।
ভালবেসে ফেলেছি- সে কখনো বেসেছিল কি-না আমাকে ভাল!
তারপর এখন সময় কতদিন, ঝরে শেষে বদলে গেছে কত স্বপ্ন।

যখন গভীর রাতে নীলাকাশ, নক্ষত্ররাজি চেয়ে থাকে;
অনুভবে, বিশ্বাসে, বিষ্ময় বিজয়ে আসে-
নন্দিনী।

পদ্মা অববাহিকায় মাটির দেয়ালবাঁধা ঘর,
মা গেঁথেছিল বাবার হাতের ছোঁয়ায়,
ফ্রেমেবাঁধা ঝুলছিল ছবি- ছোট বোনের
পদ্মার স্রোতে সে ঘর বিলীন- ফ্রেমেবাঁধা ছবিখানাও।
কাঁদতে নিষেধ করেছি মা’কে, বাবার কথাও শোনেনি
কাঁদে রাত-বিরাতে।
তারপর এখন সময় কতদিন, ঝরে শেষে বদলে গেছে কত স্বপ্ন।

ঘর এখনো, বাঁধা হয়নি আমার।
মা এখনো…না আর কাঁদে না।
বাবা এখনো সরকারি হাসপাতালের মেঝেতে মলিন-জীর্ণ চাদরে…
দু’চোখে বুক ভাসিয়ে নিঃশ্বব্দে নির্বাক চেয়ে…।
একদিন আনাড়ী চালকের ট্রাকের চাকায় পা’দুখানা পিষ্ট হয়ে- ওভাবেই।
তারপর সময় এখন কতদিন, ঝরে শেষে বদলে গেছে কতো স্বপ্ন।

পদ্মার স্রোতে ভেসেছে ছোট বোনের লাশ
ক্ষুধার্ত মাছের খাদ্যে পরিণত;
অথচ সে নিজেই ক্ষুধার্ত ছিল।

একদিন অপরাহ্নে একটি গোলাপ আমার হাতে দিয়ে বলেছিল নন্দিনী,
‘রেখেদিস’
আজও রাখা আছে-
শুকিয়ে ঝরে গেছে কিন্তু ফুরায়নি।
ঝরে শেষে বদলে গেছে কত স্বপ্ন, তারপর এখন সময় কতদিন।

আজোবধি সব রয়ে গেছে ঠিক আগের মত
ফের কেউ নেই- কিছুই তো নেই!
বদলায়নি নিলীমা, চন্দ্রালোক, রংধনুর একটি রং-ও,
ঝরে শেষে বদলে গেছে কত স্বপ্ন, তারপর এখন সময় কতদিন।

কতবার বলেছে নন্দিনী,
‘তোকে কত ভালবাসিরে’!
উৎকন্ঠায় বলেছিলাম, ‘সত্যি বাসিস তো’?
আমোদে অট্টহেসে উল্লাস করে বলেছিল,
‘ভালবাসাকে যে তুই জানিস না রে’!

‘নন্দিনী’ যার নাম রেখেছি।

আজও জানতে পারিনি ভালবাসাকে- নন্দিনীকেও।
সুখী হবার লোভ নেই, বাবুই পাখি হতে চেয়েছি- অমানুষ হতে চাইনি তো!

সেই ভালবাসা- সেদিন সত্যি আসেনি, এখনো নেই, কোনদিনও নয়।
গন্ধ রয়েছে বাতাসে, শিশিরে তার স্নিগ্ধতা;
নন্দিনী নেই।
তারপর এখন সময় কতদিন, ঝরে শেষে বদলে গেছে কত স্বপ্ন।

LEAVE A REPLY