রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর নির্যাতন: ফুঁসে উঠেছে দেশ

0
6

নিজস্ব প্রতিবেদক:
মিয়ানমারে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর নির্যাতন, অত্যাচার ও গণহত্যার প্রতিবাদে ফুঁসে উঠেছে দেশের মানুষ। সারা দেশে প্রতিদিনই বিভিন্ন রাজনৈতিক, ধর্মীয় , সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সচেতন নাগরিকদের উদ্যোগে প্রতিবাদ সভা, মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচীর আয়োজন করা হচ্ছে।

ইতোমধ্যে কয়েকটি সংগঠনের পক্ষ থেকে ঢাকাস্থ মিয়ানমার দূতাবাস ঘেরাও, প্রতিবাদলিপি পেশ এবং আরাকানের উদ্দেশ্যে লংমার্চ করার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।
একই সাথে বাংলাদেশে আশ্রিত নির্যাতিত অসুস্থ ও সহায়হীন রোহিঙ্গাদের জন্য মানবিক সাহায্যের আহবান জানানো হয়েছে।

এ প্রসংগে জাতীয় তফসির পরিষদ বাংলাদেশ-এর চেয়ারম্যান মাওলানা আহমেদ আবদুল কাইউম বলেন, বাংলাদেশের মানুষ সোচ্চার হবার কারণে আন্তর্জাতিক মহল রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে বেশি আগ্রহী হবে।

তিনি এ ব্যাপারে দেশের প্রধান প্রধান রাজনৈতিক নেতাদের নিরুৎসাহী ভূমিকার সমালোচনা করে অসহায় রোহিঙ্গাদের পাশে দাড়াতে দেশের জনগণের প্রতি আহবান জানান।
এদিকে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ আজ শনিবার চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে ১৯ সেপ্টেম্বর ঢাকাস্থ মিয়ানমার দূতাবাস ঘেরাওয়ের ঘোষণা দিয়েছে ।

হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় মহাসচিব জুনাইদ বাবুনগরী সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন গণহত্যা বন্ধ না করলে ১৯ সেপ্টেম্বর ঢাকার মিয়ানমার দূতাবাস ঘেরাও করা হবে।
আর ২১ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ ও ওআইসি মহাসচিবের কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হবে। এর আগে ১৬ সেপ্টেম্বর সারা দেশে বিক্ষোভ ও গণমিছিলের আয়োজন করা হবে।

জুনাইদ বাবুনগরী আরও বলেন, এ গণহত্যা বন্ধ না হলে হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা আহমদ শফির নেতৃত্বে আরাকানমুখী (রাখাইন রাজ্য) লংমার্চ করা হবে।

এর আগে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান নির্যাতন, হত্যা, ধর্ষণের প্রতিবাদে আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর ঢাকাস্থ মিয়ানমার দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।
গতকাল শুক্রবার জুম্মার নামাজ শেষে রাজধানীর বাইতুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেটে আয়োজিত এক সমাবেশ থেকে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ ফয়জুল করিম তিনদিনের প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।
ঘোষিত কর্মসূচী অনুযায়ী, ১১ সেপ্টেম্বর সারাদেশে বিক্ষোভ, ১২ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ,
১৩ তারিখ সকাল ১০টায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ থেকে মিয়ানমার দূতাবাস ঘেরাওয়ের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু।

এছাড়াও গতকাল শুক্রবার বাংলাদেশের সম্মিলিত বৌদ্ধ সমাজ মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর দেশটির সরকারের নিপীড়ন-নির্যাতনের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মানববন্ধন করেছে।

মানববন্ধন থেকে রোহিঙ্গাদের প্রতি মানবিক আচরণ করতে এবং বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আহ্বান জানান সংগঠনের নেতারা।
মানববন্ধনে সংগঠনের মুখ্য সমন্বয়ক অশোক বড়ুয়া লিখিত বক্তব্য পাঠ করে জানান, মিয়ানমারের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের ওপর ‘সহিংস’ঘটনার স্থায়ী সমাধান চেয়ে রোববার (১০ সেপ্টেম্বর) ঢাকাস্থ মিয়ানমার দূতাবাসে স্মারকলিপি পেশ করবে সম্মিলিত বৌদ্ধ সমাজের প্রতিনিধিরা। একই সাথে এই অনুলিপি জাতিসংঘের কার্যালয়সহ সংশ্লিষ্ট সব মহলে পাঠানো হবে।

তাছাড়া, তিন দিনের মধ্যে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বন্ধ না হলে সোমবার ঢাকার মিয়ানমার দূতাবাস ঘেরাও করার ঘোষণা দিয়েছে গণজাগরণ মঞ্চ। শুক্রবার বিকেলে রোহিঙ্গা গণহত্যা ও জাতিগত নিপীড়ন বন্ধের দাবিতে রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের সামনে আয়োজিত ‘ঢাকা র‍্যালি’ শেষে এই ঘোষণা দেওয়া হয়।

LEAVE A REPLY