শুক্রবার | ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:০০

র‌্যাম্প মডেল থেকে জঙ্গি

0

নিজস্ব প্রতিবেদক : সুদর্শন শারিরিক গঠন। চেহারায় আভিজাত্যের ছাপ। লেখাপড়া করেছেন একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে। ছিলেন র‌্যাম্প মডেলিংয়ে। বেশ কয়েকটি মডেলিং প্রতিযোগীতায়ও অংশ নিয়েছিলেন। শিক্ষা জীবন শেষে কিছু ব্যবসাও করেছিলেন। তারপর হঠাৎ জীবনের গতি পরিবর্তন। হয়ে উঠলেন জঙ্গি। বলছিলাম বুধবার দিবাগত রাতে র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হওয়া জঙ্গি ইমাম মেহেদী হাসান ওরফে আবু জিব্রিলের(২৯) কথা।

 

২০১৫ সালে উগ্র মতাদর্শে আগদ বিশ্বাস থেকে জেএমবির সারোয়ার-তামিম গ্রুপের সংস্পর্শে আসেন তিনি। এরপর সংগঠনের জন্য কর্মী সংগ্রহ, অর্থ সংগ্রহ, জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধকরণসহ বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এক সময় সারোয়ার-তামিম গ্রুপের রিজার্ভ হিসেবে রক্ষিত ব্রিগেড আদ দার-ই কুতনীর কমান্ডার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

 

বৃহস্পতিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্ণেল তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ বলেন, বুধবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে রাজধানীর খিলগাঁও থানা এলাকার দক্ষিণ বনশ্রীতে অভিযান পরিচালনা মেহেদীকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে দুটি ল্যাপটপ,  একটি মোবাইল, একটি পাসপোর্ট ও উগ্রবাদী বইসহ বিভিন্ন আলামত উদ্ধার করা হয়। তিনি রাজধানীর বনানী উত্তরা পশ্চিম থানার এজহারভূক্ত আসামী। 

 

গ্রেপ্তার মেহেদী তিনি পটুয়াখালী জেলার বাউফল থানার রাজাপুর গ্রামের মো. খোরশেদ আলমের ছেলে।

 

র‌্যাব-৩ এর গোয়েন্দা বিশ্লেষণ ও মেহেদীকে জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্যের বরাত দিয়ে তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ বলেন, ২০১৫ সালে মেহেদী জঙ্গিবাদে জড়ায় ও সারোয়ার-তামিম গ্রুপের সংস্পর্শে আসে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অব্যাহত অভিযানে জঙ্গিরা কোণঠাসা হয়ে পড়লে সে তাদেও রিজার্ভ হিসেবে রক্ষিত ব্রিগেড আদ দার-ই-কুতনীর কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করে ও ব্রিগেডের জন্য কর্মী সংগ্রহ শুরু করে।

 

ইমাম মেহেদী ঢাকা, টাঙ্গাইল ও রাজশাহীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গি হামলায় উদ্বুদ্ধ সদস্যদের মাঝে শপথ পাঠ করাত। আদ্-দার-ই-কুতনীতে সাহায্যকারী, মুহাজির যোদ্ধা, সালাফি আলেম বোর্ড এবং অর্থ প্রদানকারী বিভিন্ন ব্যক্তি রয়েছে বলে ইমাম মেহেদী জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে। ব্রিগেডের দুজন জঙ্গি ইতিমধ্যে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর জঙ্গিবিরোধী অভিযানে নিহত হয়েছে বলে সে জানিয়েছে।

 

তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ জানান, ইমাম মেহেদীর কাছ থেকে উদ্ধারকরা  আলামত পরিক্ষা করে গোয়েন্দারা নিশ্চিত হয়েছেন যে, ব্রিগেড আদ্-দার-ই-কুতনী অপারেশনাল সক্ষমতা অর্জন করেছে। তারা যেকোনো স্থানে নাশকতা করতে সক্ষম।

 

এর আগে ২০১৬ সালের ৮ অক্টোবর র‌্যাবের অভিযানে পালাতে গিয়ে নিহত হন জেএমবির সারোয়ার-তামিম গ্রুপের তৎকালীন আমীর সারোয়ার জাহান ওরফে মানিক ওরফে আবু ইব্রাহিম আল হানিফ। পরে তার বাসা থেকে উদ্ধার নথি বিশ্লেষণ করে তাদের দুটি অপারেশনাল ব্রিগেড প্রতিষ্ঠার তথ্য পায় র‌্যাবের গেয়েন্দারা। এরমধ্যে রয়েছে বদর স্কোয়াড ও ব্রিগেড আদ্-দার-ই কুতনী। সারোয়ার জাহান নিহতের কিছুদিন পর র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ এই দুই ব্রিগেটের ব্যাপারে সাংবাদিকদের অবহিত করেছিলেন। সেখানে তিনি দাবি করেছিলেন গুলশানের হলি আর্টিজান হামলার নেপথ্যে বদর স্কোয়াড কাজ করেছিল।

ববিতে ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু

0

বরিশাল ব্যুরো

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ¯œাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার জন্য অনলাইনে আবেদন শুরু হচ্ছে আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে। ওই দিন (রবিবার) দুপুর ২ টা হতে শুরু হওয়া আবেদন গ্রহন করা হবে আগামী ২৪ অক্টোবর মঙ্গলবার রাত ১২ টা পর্যন্ত।
ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহনের জন্য আগ্রহী শিক্ষার্থীরা অনলাইনে “admission.eis.bu.ac.bd”” এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এসএম ইমামুল হক।
তিনি জানিয়েছেন, ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যা “admission.eis.bu.ac.bd” I‡qemvBU QvovI Òbarisaluniv.ac.bd Ges barisaluniv.edu.bd” তে পাওয়া যাবে।
আবেদন গ্রহন এবং যাচাই বাচাই শেষে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ভর্তির জন্য আবেদনকারীদের ভর্তি পরীক্ষা আগামী ২৪ ও ২৫ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হবে।
উল্লেখ্য, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬টি অনুষদের অধীন ২০টি বিভাগের পাশাপাশি চলতি ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষ হতে নতুন আরও ২টি বিভাগ সংযোজিত হয়েছে। যার একটি ‘গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ’ এবং অন্যটি ‘বায়োকেমেস্ট্রি ও বায়োটেকনোলজি বিভাগ’। এদুটি বিভাগেও চলতি শিক্ষা বর্ষে ভর্তি নেয়া হবে।

গাজীপুরে চাউলের সাত ব্যবসায়ীকে জরিমানা

0

গাজীপুর সংবাদদাতাঃ গাজীপুরে দু’টি ভ্রাম্যমাণ আদালত বৃহষ্পতিবার চাউলের দোকানে পৃথক অভিযান চালিয়ে ৭ ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেছে। গাজীপুরের সদর উপজেলা ও কালীগঞ্জ উপজেলা এলাকার বাজারে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

গাজীপুর জেলা বাজার কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সালাম জানান, গাজীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আশরাফ উদ্দিনের নেতৃত্বে গাজীপুর সদর উপজেলার বাঘের বাজারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়। অভিযানকালে দোকানে থাকা চাউল কেনার রশিদ ও রেজিষ্ট্রার খাতা প্রদর্শন করতে না পারা এবং দোকানে মূল্য তালিকা টানানো না থাকায় ওই বাজার এলাকায় চাউলের খুচরা ব্যবসায়ী হাজী ষ্টোরের মালিক মোহাম্মদ আলী, মারুফ স্টোরের মালিক রাকিবুল হাসান, রায়হান স্টোরের মালিক মোঃ রায়হান, রাজাবাড়ি স্টোরের মালিক স্বপন চন্দ্র ঘোষ ও আফজাল স্টোরের মালিক আমান উল্লাহ আমানকে ১০ হাজার টাকা করে মোট ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অভিযানকালে গাজীপুর জেলা বাজার কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সালামসহ আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে একইদিন কালীগঞ্জ গাজীপুরের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. সোহাগ হোসেনের নেতৃত্বে কালীগঞ্জ বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়। অভিযানকালে নির্দিষ্ট মজুদের চেয়ে অধিক চাউল মজুদ করার অপরাধে ভোক্তা অধিকার আইনের ২০০৯ এর ৪৫ ধারা মোতাবেক মেসার্স গৌরাঙ্গ ভান্ডারকে ৩০ হাজার টাকা এবং মেসার্স জামান স্টোরকে ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করা হয়। সূত্র আরো জানায়, ব্যবসায়ীদের কাছে সর্বোচ্চ ১৫ টন চাউল মজুদ থাকার কথা। কিন্তু মেসার্স গৌরাঙ্গ ভান্ডারে ৬৫.৭ টন এবং মেসার্স জামান স্টোরে ২৯.২৫ টন চাউল মজুদ পাওয়ায় যায়। পরে দিনের মধ্যে মজুদকৃত চাউল অন্য ব্যবসায়ীদেরকে দিয়ে দেওয়ার শর্তে মুচলেকা নেওয়া হয়।

চিকিৎসা সেবায় রোহিঙ্গা শরণার্থীদের উপস্থিতি কয়েকদিনের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে- ডাঃ এ জেড এম জাহিদ হোসেন

0

 নিজস্ব প্রতিবেদক:  মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অকথ্য নির্যাতন ও হত্যাকান্ড থেকে কোন রকমে জান নিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া মুসলিম রোহিঙ্গাদের জন্য বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আহবানে সাড়া দিয়ে ডক্টরস এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব এর উদ্যোগে রোহিঙ্গা উপদ্রুত এলাকায় ড্যাব মহাসচিব ও বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান প্রফেসর ডাঃ এ জেড এম জাহিদ হোসেন এর নেতৃত্বে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প ও বিনামূল্যে ঔষুধ বিতরণের আজ ৯ম দিনেও রোহিঙ্গা নর-নারী ও শিশুদের উপচে পড়া ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। আজ চিকিৎসা সেবা নিয়েছে প্রায় ৬২০০ রোহিঙ্গা নর-নারী ও শিশুরা। ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পে প্রতিদিনের ন্যায় চিকিৎসা সেবা ছাড়াও বিনামূল্যে ঔষুধ, ওয়াটার পিউরিফাই ট্যাবলেট, জীবানুনাশক সাবান ও হাই প্রোটিন বিস্কিট বিতরণ করা হয়।


ড্যাব এর এই কার্যক্রম যথারীতি সকাল ১০টায় শুরু হয়ে বিকেল ৫টায় তা শেষ হয়।
বিএনপি’র সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই কার্যক্রম যৌথভাবে পরিচালনা করছে ডক্টরস এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব কেন্দ্রীয় কমিটি ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ শাখা। এছাড়া, চট্টগ্রাম জেলা ও মহানগর, কক্সবাজার জেলা এবং বান্দরবান জেলা শাখাও এই কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে।


বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ১০ম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে মিয়ানমার সরকারের সেনাবাহিনী কর্তৃক নির্যাতিত-নিপীড়িত অসহায় রোহিঙ্গাদেরকে চিকিৎসা সহায়তার জন্য এই কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে।


ড্যাব মহাসচিব ও বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান প্রফেসর ডাঃ এ জেড এম জাহিদ হোসেন এর নেতৃত্বে আজকের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প ও বিনামূল্যে ঔষুধ প্রদান অনুষ্ঠানে চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন ডাঃ সাইফুল ইসলাম সেলিম, ডাঃ সাইফ উদ্দিন নেশার আহমেদ তুষান, ডাঃ শামীউল সুহান, ডাঃ কাউসার ইয়ামিন ইশাদ, ডাঃ মাসুদ পারভেজ, ডাঃ মোঃ আব্দুস সালাম তারেক, ডাঃ সিফাতুল ইসলাম, ডাঃ ফানিকুল ইসলাম শিব্বির, ডাঃ মোঃ কাজী নকীব, ডাঃ মোঃ তারিকুল ইসলাম লিমন, ডাঃ মোঃ মিজানুর রহমান, ডাঃ মশিউর রহমান মুসা, ডাঃ নাভেদ, ফাহিমুর রহমান ফাহিম, ইমন শাহ, ইকবাল হায়দার চৌধুরী, রিদুয়ান সিদ্দিকসহ ২৫ জন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার।

ভিক্ষুক মায়ের ছয় সন্তানকে ডিআইজি’র তলব : তদন্ত কমিটি গঠন

0

বরিশাল ব্যুরো

সামান্য জমি নিয়ে ছয় ভাই বোনের মধ্যে সৃষ্ট দন্দের কারনেই অসহায় বৃদ্ধ মাকে ছেড়ে চলে যান তিন পুলিশ সদস্য সহ ছয় সন্তান। তাদের কাছ থেকে কোন প্রকার সাহাজ্য সহায়তা না পেয়ে সত্তোরর্ধ মা মনোয়ারা বেগমকে ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবন পরিচালনা করতে হয়।
বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে বরিশাল রেঞ্জ এর ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম-পিপিএম বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মনোয়ারা বেগম এর তিন পুলিশ সদস্য সহ ৫ পুত্রকে ডিআইজি কার্যালয়ে তলবের পরে সন্তানদের কাছ থেকে এমন সব তথ্য বেরিয়ে আসে।
এদিকে ডিআইজি’র হস্তক্ষেপে অসহায় বৃদ্ধা মার্ দায়িত্ব নিতে হয়েছে পাঁচ পুত্রকেই। তারাই দেখভাল করবেন। এমনকি মা সুস্থ হলে যে সন্তানের কাছে থাকতে তিনিই বৃদ্ধা মায়ের দায়িত্ব নিবেন বলে ডিআইজি’র কাছে অঙ্গিকার নামা দিয়েছেন। সেই সাথে বিষয়টি তদারকি এবং তদন্তের জন্য ছয় সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে দেয়া হয়েছে।
বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালর্য়ে পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান প্রানকে প্রধান করে গঠিত তদন্ত কমিটিতে বরিশাল জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোল্লা আজাদ এবং বাকেরগঞ্জ সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. মফিজুল ইসলামকে সদস্য করা হয়েছে।
বরিশাল জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোল্লা আজাদ জানান, বাবুগঞ্জের বৃদ্ধা ভিক্ষুক মনোয়ারা বেগম এর ছয় সন্তানের মধ্যে বড় ছেলে মোঃ ফারুক আহম্মেদ অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা। তিনি এএসআই হিসেবে ঢাকায় কর্মরত ছিলেন। অপরজন মোঃ জসিম উদ্দিন বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ে কনেষ্টবল হিসেবে কর্মরত এবং মোঃ নেছার উদ্দিন ঢাকা রেঞ্জে ডিএসবিতে এএসআই পদে কর্মরত রয়েছেন। এছাড়াও শাহাবউদ্দিন খুলনায় ব্যবসা করেন ও ছোট ছেলে বাবুগঞ্জে অটো চালান এবং একমাত্র কণ্যা বাবুগঞ্জের একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে কর্মরত।
সন্তানরা প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পরেও তাদের বিধবা সত্তোরর্ধ অসহায় বৃদ্ধা মায়ের করুন পরিনতির বিষয়টি খতিয়ে দেখতে বরিশল রেঞ্জ এর ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম সন্তানদের তলব করেন। বৃহস্পতিবার তারা বরিশল ডিআইজি কার্যালয়ে আসলে তাদের সাথে কথা বলেন ডিআইজি।
মায়ের ভিক্ষাবৃত্তির কারন সম্পর্কে সন্তানরা জানিয়েছে, জমি জমা নিয়ে ভাইদের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলছে। একারনে সবাই যে যার মত করে আলাদা হয়ে গেছেন। ফলশ্র“তিতে বাড়ীর কোন খোঁজ খবর তাদের কাছে নেই। সংগত কারনেই মনোয়ারা বেগমের একরুন পরিনতি।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা আজাদ জানান, মনোয়ারা বেগমের সন্তানরা প্রত্যেকেই অঙ্গিকার করেছেন তাদের মায়ের সুস্থতার জন্য চিকিৎসা সেবা চালিয়ে যাবেন। সন্তানরা পর্যায়ক্রমে ১৫ দিন করে মায়ের সেবায় দায়িত্ব পালন করবে। যত দিন পর্যন্ত মনোয়ারা বেগম সুস্থ না হবেন তত দিন তারা এই দায়িত্ব পালন করবে। মনোয়ারা বেগম সুস্থ হয়ে উঠলে তিনি যার কাছে থাকতে চাইবেন তার কাছেই তাকে হস্থান্তর করা হবে। একই সাথে সকল সন্তান তাকে সহায়তা করবেন।
দায়িত্ব পালনে কোন গাফলতি হচ্ছে কিনা তা তদারকি করবেন পুলিশ কর্মকর্তারা। এজন্য তিনি পুলিশ কর্মকর্তার সমন্বয়ে একটি কমিটিও করে দেয়া হয়েছে। মায়ের প্রতি সন্তানদের দায়িত্ব পালনে গাফেলতি হলে সন্তানদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের ওই কর্মকর্তা।
এ প্রসঙ্গে মনোয়ারা বেগমের ছোট ছেলে অটোরিক্সা চালক গিয়াস উদ্দিন জানান, ভাইয়েরা মায়ের কোন খোঁজ খবর নেয়নি। তার দৈনন্দিন জীবনের চাহিদাও পুরন করেনি। এজন্য মা সকলের অগচরে গ্রামের ভিক্ষাবৃত্তি করে বেরাতো। এক পর্যায় তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।
তবে ছোট ভাইর্য়ে করা অভিযোগ সত্য নয় বলে দাব করেছে তিন পুলিশ পুত্র। তারা জানিয়েছেন, জমি বিরোধের কারনে গ্রামের বাড়িতে না গেলেও মায়ের খোঁজ খবর নিয়েছেন। প্রতি মাসেই তার খরচের জন্য স্থানীয় একটি দোকানে টাকা পাঠিয়েছেন। কিন্তু মা সেই টাকা নেননি। আমাদের উপর অভিমান করে মানুষের বাড়িতে ভিক্ষা করতেন। অনেক বার তাকে নিষেধ করা সত্ত্ওে তিনি সোনেননি।
এদিকে মনোয়ারা বেগম এর একমাত্র কণ্যা স্কুল শিক্ষিকা মরিয়ম সুলতানাকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশনা অনুযায়ী শোকজ করে উপজেলা শিক্ষা অফিসার। মরিয়ম সুলতানা এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে কারন দর্শিয়েছেন। তবে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, সপ্তাহ অন্তরান্তর মায়ের খোঁজ খবর নিয়েছেন। কিন্তু তিনি তার অসুস্থতার কথা গোপন রাখেন বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানিেেছন বলে উপজেলা শিক্ষা অফিসার তোফাজ্জেল হোসেন জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য, বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলা ক্ষুদ্রকাঠী গ্রামের মৃত্যু আইয়ুব আলী সরদারের সত্তরোর্ধ স্ত্রী ও প্রতিষ্ঠিত ৬ সন্তানের জননী মনোয়ারা বেগম ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবন কাটাতেন। ভিক্ষা করতে গিয়ে পা পিছলে পড়ে গিয়ে গুরুতর আঘাত প্রাপ্ত হন। তিন্তু বিনা চিকিৎসায় একটি ঘুপরি ঘরের মধ্যে অসহায় জীবন যাপন করে আসছিলেন।
এ নিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হলে বিষয়টি নিয়ে দেশব্যাপী আলোচনার সৃষ্টি হয়। প্রকাশিত সংবাদের সূত্র ধরে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে বরিশাল-৩ আসনের এমপি এ্যাড. শেখ মু. টিপু সুলতান এর নির্দেশে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করে দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। সেই সাথে ওই সংসদ সদস্য বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগমের চিকিৎসা সহ যাবতীয় দায়িত্বভার গ্রহন করেন।
পরবর্তীতে বরিশালের পুলিশ সুপার, জেলা প্রশাসক এবং ডিআইজি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মনোয়ারা বেগম এর খোঁজ খবর নেয়ার পাশাপাশি তাকে অর্থিক সহায়তা প্রদান করেন।

যুবদল নেতা ইমন বিশ্বাসের নামে ৫৭ ধারায় মামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ

0

জাতীয়তাবাদী যুবদল কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভাপতি সাইফুল আলম নীরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু এক বিবৃতিতে জাতীয়তাবাদী যুবদল মেহেরপুর পৌর যুবদলের প্রচার সম্পাদক ইমন বিশ্বাসের নামে সর্বমহলে ধিকৃত কুখ্যাত ৫৭ ধারায় মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ করেছেন।
বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় বলেন পরমতে অসহিন্সু বর্তমান বাকশালী সরকার গণতন্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে পাশ কাটিয়ে বিরোধী দলীয় নেতা কর্মীদের মতামত কে গলাটিপে ধরার মানষে কুখ্যাত ৫৭ ধারার মাধ্যমে বিরোধী নেতা কর্মীদের হেনেস্থা করছে, যা গণতান্ত্রিক সমাজ ব্যাবস্থার সাথে সামনযস্যপূর্ন নয় যা স্বৈরাচারী মানষিকতারই বহিঃপ্রকাশ। নেতৃদ্বয় অবিলম্বে কুখ্যাত ৫৭ ধারা প্রত্যাহার ও যুবনেতা ইমনের মূক্তি দাবী করেন।

বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধের দাবীতে কালিয়াকৈরে পোশাক কারখানা ভাংচুর: ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া : গুলি পুলিশসহ আহত ১৯

0
গাজীপুর সংবাদদাতাঃ গাজীপুরের কালিয়াকৈরে বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধের দাবীতে বৃহস্পতিবার এক পোশাক কারখানার শ্রমিকরা কর্ম বিরতি, বিক্ষোভ ও ভাংচুর করেছে। এসময় পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের কয়েক দফা সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ার সেল ও সর্টগানের গুলি ছুড়েছে। এঘটনায় পুলিশের ৪ সদস্য ও অন্ততঃ ১২ জন শ্রমিক আহত হয়েছে। শ্রমিক অসন্তোষের মুখে 
 
শিল্প-পুলিশ গাজীপুর-১ এর সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মকবুল হোসেন ও শ্রমিকরা জানান, গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা পল্লীবিদ্যুৎ এলাকাস্থিত আয়মন টেক্সটাইল এন্ড হোসিয়ারী লিমিটেড কারখানার শ্রমিকরা গত কয়েকদিন ধরে কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছে তাদের পাওনা ঈদের আগের মাসের (আগস্ট) ১০ দিনের বকেয়া বেতন ও ওভার টাইমের ভাতা পরিশোধের দাবী জানিয়ে আসছিল। কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের পাওনাদি গত ১০ সেপ্টেম্বর পরিশোধের আশ্বাস দিলেও তা পরিশোধ করে নি। এতে শ্রমিকদের মাঝে অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে শ্রমিক অসন্তোষের মুখে কর্তৃপক্ষ বৃহষ্পতিবার শ্রমিকদের বেতন ভাতা পরিশোধের আশ্বাস দেয়। এদিন সকালে শ্রমিকরা কারখানায় এসে তাদের বেতন ভাতা পরিশোধের দাবীতে কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ শুরু করে। পরিবহন সমস্যার কারনে ঢাকা থেকে বেতন ভাতার টাকা নিয়ে কারখানায় পৌছতে দেরী হওয়ায় বেতন ভাতা পরিশোধ করা হবেনা বলে শ্রমিকদের মাঝে গুজব ছড়িয়ে। এর জের ধরে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে দুপুরে কারখানার ভিতরে বিভিন্ন মালামাল ও মেশিন এবং আসবাবপত্র ভাংচুর করে। এসময় তারা কারখানার ভিতরে কর্মকর্তাদের অবরুদ্ধ করে গেইটে তালা ঝুলিয়ে দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়। এক পর্যায়ে বিকেলে টাকা বহনকারী গাড়ি কারখানার গেইটে পৌছলে শ্রমিকদের মাঝে আবারো উত্তেজনা দেখা দেয়। এসময় টাকা বহনকারী গাড়ি নিয়ে পুলিশ ভিতরে প্রবেশের চেষ্টা করলে শ্রমিকরা বাধা দেয়। ওই গাড়িতে টাকা নেই এমন গুজব ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজিত শ্রমিকরা পুলিশের উপর হামলা চালায় এবং ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এতে পুলিশের ৪ সদস্য আহত হয়। এসময় শ্রমিকরা টাকা বহনকারী গাড়িটিও ভাংচুর করে। এসময় পুলিশ লাঠিচার্জ করলে পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। একপর্যায়ে পুলিশ ৪রাউন্ড টিয়ার সেল এবং ১২ রাউন্ড সর্টগানের ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এঘটনায় পুলিশের ৪ সদস্য ও অন্ততঃ ১২ জন শ্রমিক আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে বিকেলের দিকে শ্রমিকদের বেতন ভাতাদি পরিশোধের কার্যক্রম শুরু হয় এবং সন্ধ্যা পর্যন্ত তা চলছিল।
 
কারখানার এজিএম নাসির উদ্দিন বালী জানান, বেতন দেয়াকে কেন্দ্র করে ভূল বোঝাবুঝির কারণে এঘটনা ঘটেছে। বেতন দেয়া শুরু হওয়ায় পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।
 
শিল্প-পুলিশ গাজীপুর-১ এর সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মকবুল হোসেন জানান, শ্রমিকদেও হামলায় ও তাদেও ছোড়া ইটপাটকেলের আঘাতে পুলিশের ৪ সদস্য আহত হয়েছে। একপর্যায়ে পুলিশ ৪ রাউন্ড টিয়ার সেল ও ১২ রাউন্ড সর্টগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

গাজীপুরে কাশিমপুর কারাগার থেকে ইয়াবাসহ কারারক্ষী আটক

0
গাজীপুর সংবাদদাতাঃ গাজীপুরে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এর এক কারারক্ষীকে বৃহষ্পতিবার ছয়শত পিস ইয়াবাসহ হাতে নাতে আটক করা হয়েছে। আটককৃত ওই কারারক্ষীর নাম আজিজার রহমান। তিনি বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার পোড়ানগরী ছয়গড়িয়া গ্রামের নবাব আলীর ছেলে।
 
কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এর জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিক জানান, কারারক্ষী আজিজার রহমান ইয়াবা সেবন ও বিক্রির সঙ্গে জড়িত রয়েছে। এমন তথ্য কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পূর্বে থেকেই ছিল। এরপর থেকে তার প্রতি বিশেষ নজরদারী করা হয়। পরে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে কারারক্ষী আজিজারকে চ্যালেঞ্জ করে তার দেহ তল্লাশী করা হয়। এসময় তার সঙ্গে থাকা ৬’শ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে জয়দেবপুর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।
 
জয়দেবপুর থানার কোনাবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আঃ হামিদ জানান, কারাকর্তৃপক্ষ ওই কারারক্ষীকে ইয়াবাসহ আটক করে। পরে পুলিশে খবর দিয়ে তাকে ফাঁড়িতে আনা হয়। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
 

প্রধানমন্ত্রীর সাথে থেরেসা মে, এরদোয়ানের সাক্ষাৎ

0

দেশ জনতা ডেস্ক: নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে সংস্থাটির ৭২তম সাধারণ অধিবেশনে অংশগ্রহণের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে যুক্তরাজ্য ও নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী, তুরস্ক ও এস্তোনিয়ার প্রেসিডেন্ট, নেদারল্যান্ডসের রানি ও আরওএম এর মহাপরিচালকের সাক্ষাৎ হয়েছে। বুধবার ও আগের দিন মঙ্গলবার বিভিন্ন সময় আলাদা আলাদাভাবে এসব সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়।

বুধবার রাতে হোটেল গ্র্যান্ড হায়াতে পররাষ্ট্রসচিব শহীদুল হক সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম উপস্থিত ছিলেন।
মঙ্গলবার স্থানীয় সময় দুপুরে জাতিসংঘ মহাসচিবের দেওয়া মধ্যাহ্নভোজের পর নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী ইরনা সোলবার্গ (Erna Solberg) ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মধ্যে সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়।
পররাষ্ট্রসচিব জানান, সাক্ষাতে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনার পাশাপাশি মিয়ানমারের নির্যাতনের শিকার সে দেশের নাগরিক রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বিষয়টিও বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে উঠে আসে। মানবিক দিক বিবেচনা করে বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী। রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে সহায়তা দেওয়ার আগ্রহও প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী ইরনা সোলবার্গ।

মঙ্গলবার বিকেলে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে রোহিঙ্গা ইস্যুতে অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন (ওআইসি) কন্ট্যাক্ট গ্রুপের এক সভা শেষে একটি অনির্ধারিত বৈঠকে মিলিত হন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান। মানবিক দিক বিবেচনা করে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও প্রশংসা করেন এরদোয়ান। তিনি বলেন, তুর্কি জনগণ বাংলাদেশের দুঃখ-কষ্টে সব সময় পাশে থাকবে।

রোহিঙ্গাদের সহায়তার বিষয়েও আগ্রহ প্রকাশ করেন এরদোয়ান।
আগের দিন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানদের নিয়ে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বৃটিশ প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে রোহিঙ্গা ইস্যুসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বুধবার সকালে এস্তোনিয়ার প্রেসিডেন্ট কারস্তি কালিউলাইদ (Kersti Kaljulaid) ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠকে দুই দেশের ডিজিটালাইজেশনের বিষয়ে আলোচনা হয়। এবং তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে পারস্পরিক সহযোগিতায় একমত হন দুই নেতা।

বুধবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে নেদারল্যান্ডসের রানি ম্যাক্সিমা জোররেগিয়েটা সেরুটির (Máxima Zorreguieta Cerruti) মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উন্নয়ন বিষয়ক বিভিন্ন আলোচনার পাশাপাশি রোহিঙ্গা ইস্যুও উঠে আসে। এ ইস্যুতে বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা করেন রানি মাক্সিমা। পররাষ্ট্রসচিব জানান, সেখানে প্রধানমন্ত্রী তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ও উপস্থিত ছিলেন। জয়ের সঙ্গে ম্যাক্সিমার তথ্য প্রযুক্তিগত সহায়তার বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হয়।

রাতে হোটেল গ্র্যান্ড হায়াত হোটেলে ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন অব মাইগ্রেশনের (আইওএম) মহাপরিচালক উইলিয়াম ল্যাসি সুইং (William Lacy Swing) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। পররাষ্ট্রসচিব বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে আইওএম বাংলাদেশে কি কাজ করছে সেটা প্রধানমন্ত্রীকে জানান মহাপরিচালক। আরো কি করবেন সেটাও প্রধানমন্ত্রীকে বলেন তিনি। আগামী ৫-৬ অক্টোবরের দিকে রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখতে উইলিয়াম ল্যাসি সুইং বাংলাদেশে সফরে যাবেন। রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে মানবিক কারণে আশ্রয় দেওয়ায় ধন্যবাদ জানান তিনি। রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ দেশে ফিরে যেতে মিয়ানমারের ওপর আর্ন্তজাতিক চাপ সৃষ্টির তাগিদ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ দেশে ফিরে যেতেই হবে।

উদ্বোধন হল বিশ্বের দ্রুততম বুলেট ট্রেনের

0

বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুততম বুলেট ট্রেনের উদ্বোধন হল চিনে। বেইজিং থেকে সাংহাই পর্যন্ত ছুটবে ওই ট্রেন। ঘণ্টায় ৩৫০ কিলোমিটার গতিবেগে ছুটে বেইজিং থেকে সাংহাই পৌঁছবে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতি সম্পন্ন ওই ট্রেন।

জানা যাচ্ছে, বেইজিং থেকে সাংহাইয়ের দূরত্ব ১২৫০ কিলোমিটার অর্থাত ৭৭৭ মাইল। আর ওই ১২৫০ কিলোমিটার রাস্তা মাত্র ৪ ঘণ্টা ৩০ মিনিটে সম্পূর্ণ করবে চিনের ওই ট্রেন।

২১ সেপ্টেম্বর থেকেই বেইজিং থেকে সাংহাই পর্যন্ত ওই বুলেট ট্রেন চালানো হবে।

বেজিং সাউথ স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করবে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত গতিসম্পন্ন ট্রেন। ওই ট্রেনের দৌলতেই এবার বেইজিং থেকে সাংহাইয়ের দূরত্ব এবার আরও এক ঘণ্টা কমে যাবে।

প্রতি ঘণ্টায় কখনও কখনও ৪০০ কিলোমিটার বেগেও ওই ট্রেন ছুটবে বলে জানা যাচ্ছে। ওই ট্রেনের মধ্যে যাত্রীরা ওয়াইফাই সহ বিভিন্ন ধরণের সুবিধা পাবেন বলেও খবর।

পাশাপাশি আরও জানা যাচ্ছে, এতদিন পর্যন্ত ড্রাগনের দেশে যে বুলেট ট্রেনগুলি চালানো হচ্ছিল, সেগুলির তুলনায় আরও বেশি গতিতে ছুটবে ওই বুলেট ট্রেন।