সীমান্তে রোহিঙ্গাদের খাবার নেই, পানি নেই, শুধু হাহাকার : এতো বড় মানবিক বিপর্যয় আমি সাংবাদিকতার জীবনে দেখিনি – আবু সালেহ আকন

0
104

খাবার নেই, পানি নেই, টয়লেট নেই । চারদিকে শুধু মানবিক বিপর্যয়। রাস্তার ধারে, পতিত জমিতে,বিলের ধারে, জঙ্গলে যে যেখানে পারছে আশ্রয় নিচ্ছে । কাউকে দেখলেই ছুটে যাচ্ছে ত্রানের আশায়। সে সাংবাদিক হোক, পথিক হোক আর বিজিবির সদস্য হোক।
ছোট ,বড় ,বৃদ্ধ-বৃদ্ধা সবাই ছুটে যাচ্ছে ত্রানের জন্য। চারদিকে শুধু হাহাকার। আমি আমার সাংবাদিকতার জীবনে এমন মানবিক বিপর্যয় কখনোই দেখিনি বলে মন্তব্য করেছেন বাংলঅদেশ ক্রাইম রির্পোটার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি নয়াদিগন্তের বিশেষ প্রতিনিধি আবু সালেহ আকন।
গত ৪ দিন ধরে তিনি রোহিঙ্গা শরণার্থি অধ্যুষিত কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকায় সরেজমিনে ঘুরেছেন। ফোনে তিনি দেশ জনতা ডটকমকে এসব কথা বলেছেন।
আবু সালেহ আকন বলেন, ‌‌নাফ নদীর ওপাড়ে মিয়ানমার বৌদ্ধ সন্ত্রাসীদের দেয়া বাড়ি-ঘরের জ্বলতে থাকা আগুনের কুণ্ডলী ও ধোয়া দেখা যায় রয়েছে বিভিন্ন জায়গায় রোহিঙ্গাদের ভিড় যারা বাংলাদেশে আসতে চায়। আর এপাড়েও লাখ লাখ অসহায়, বিধ্বস্ত পুরুষ, নারী ও শিশু, যাদের কেউ কেউ মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর নিষ্ঠুরতায় গুরুতর আহত, মিয়ানমার-বাংলাদেশ সীমান্তে ছুটে আসছে। নাফ নদীর তীরে প্রতিদিন নারী ও শিশুর লাশ ভেসে আসছে, যাদের বেশির ভাগই মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা পরিবারভর্তি নৌকাডুবির শিকার।

তিনি বলেন , ‌খাবার নেই পানি নেই। তারওপর এপাড়েও নতুন করে জুটেছে একদল সন্ত্রাসী ওলুটেরা। যারা জীবনের ভয়েপালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের স্বর্বস্ব লুটে নিচ্ছে । নিরাপত্তায় নেই যুবতীরাও।
সবচেয়ে করুন অবস্থায় রয়েছে লম্বার বিল ও রাজার বিলের এলাকার মানুষ। তারা মুখে দেয়ার জনৗ্য একফোটা পানিও পাচ্ছে না।

LEAVE A REPLY