এবারের ঈদযাত্রা হবে অস্বস্তিকর ও ঝুঁকিপূর্ণ

0
7

নিজস্ব প্রতিবেদক:
এবারের ঈদযাত্রা ঝুঁকিপূর্ণ হবে বলে মন্তব্য করে বিশিষ্টজনেরা ঈদুল আজহা উপলক্ষে নিরাপদ যাতায়াত নিশ্চিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ শুক্রবার রাজধানীর পুরানা পল্টনের মুক্তি ভবনে ঈদে নিরাপদ যাতায়াতবিষয়ক এক পরামর্শমূলক আলোচনা সভায় তারা এই আহ্বান জানান।

বেসরকারি সংগঠন নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটি এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা ও প্রবীণ রাজনীতিবিদ মনজুরুল আহসান খানের সভাপতিত্বে সভায় সূচনা বক্তব্য উপস্থাপন করেন সাধারণ সম্পাদক আশীষ কুমার দে।

বুয়েটের অধ্যাপক ড. মীর তারেক আলী বলেন, প্রতি ঈদে ঢাকাসহ বড় শহরগুলো থেকে বিপুলসংখ্যক মানুষ গ্রামের বাড়িতে স্বজনদের কাছে যায়। তাই প্রতিবছর ঈদে নির্বিঘœ যাতায়াত নিয়ে নানা সমস্যা ও শংকা দেখা দেয় এবং ঈদের আগে তড়িঘড়ি করে সমাধানের চেষ্টা করা হয়। এভাবে শুধু ঈদকে সামনে রেখে দায়সারা সমাধানের চেষ্টা করলে হবে না, সংকট নিরসনে দর্ঘিমেয়াদি পরিকল্পনা প্রণয়ন করতে হবে। এবার সড়ক ও নৌপথে দুর্ঘটনার আশংকা রয়েছে বলে মনে করেন এই পরিবহন বিশেষজ্ঞ।

সভাপতির বক্তব্যে মনজুরুল আহসান খান বলেন, প্রলয়ংকরী বন্যা ও অতি বর্ষণের কারণে অনেক সড়ক ও রেলপথ চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় নৌপথের ওপর চাপ বেশি পড়বে। তাই এবার ঈদে সড়ক, নৌ ও রেলপথ তথা সমগ্র পরিবহন ব্যবস্থাই ঝুঁকিপূর্ণ।

জনগণের নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব রাষ্ট্রের, এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, যেহেতু রাষ্ট্রের চালক সরকার, তাই নাগরিকদের নিরাপত্তার দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে। দুর্ঘটনা ও জনভোগান্তি রোধে সরকারকে সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট সব কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান এই প্রবীণ রাজনীতিবিদ।

দৈনিক কালের কন্ঠ’র জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক নিখিল ভদ্রর সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন সিটিজেন্স রাইট্স মুভমেন্টের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি মো. এনায়েতুর রহিম, সাবেক সাংসদ এ্যাডভোকেট তাসনিম রানা, যাত্রী অধিকার পরিষদের সভাপতি তুসার রেহমান, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) যুগ্ম সম্পাদক মিহির বিশ্বাস, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) সাবেক পরিচালক এমদাদুল হক বাদশা উন্নয়ন ধারা ট্রাস্টের সদস্যসচিব আমিনুর রসুল বাবুল এবং নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক, সেকেন্দার হায়াৎ।

আলোচনা সভায় চলমান ঈদ-যাত্রায় জননিরাপত্তার স্বার্থে আগামী দু’সপ্তাহের জন্য নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে সরকারের উদ্দেশে সুপারিশে বলা হয় সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল ও কমলাপুর রেলস্টেশনসহ রাজধানীর সকল বাস টার্মিনালে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনানহ সার্বক্ষণিক কঠোর নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। লঞ্চ, বাস ও ট্রেনের ছাদসহ ট্রাকে যাত্রী বহন এবং সড়ক ও নৌপথে সব ধরনের অবৈধ যান চলাচল বন্ধেরও সুপারিশ করেন তারা।

পদ্মার শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি ও পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে নিরবিচ্ছিন্ন ফেরি চলাচল ও যানবাহন পারাপারে নৈরাজ্য বন্ধে দুই ফেরিঘাটে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার পাশাপাশি তারা শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি ও পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে ত্রুটিপূর্ণ লঞ্চসহ ঝুঁকিপূর্ণ ক্ষুদ্র নৌযান চলাচল বন্ধের দাবি জানান।

একিই সাথে ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাক-টাঙ্গাইল ও ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের যানজট রোধে সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি নৌপথে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনায় উপকূলীয় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী হাকিমদের দায়িত্ব প্রদাণের সুপারিশ করেন তারা।

তারা কোস্টগার্ড ও নৌ পুলিশের পাশাপাশি উপকূলীয় জেলার পুলিশ প্রশাসনকে নৌ নিরাপত্তায় সম্পৃক্তকরণ এবং প্রতিঘন্টায় টেলিভিশন ও বেতারে এবং সকল টার্মিনালে সার্বক্ষণিক লাউড স্পিকারে আবহাওয়া বার্তা প্রচারেরও সুপারিশ করেন।

নয়াদিগন্ত

LEAVE A REPLY