কালীগঞ্জে স্ত্রীর গোপনাঙ্গে গরম রডের ছেঁকা, স্তন কর্তন : পাষন্ড স্বামী গ্রেফতার

0
64

গাজীপুর সংবাদদাতা ॥ গাজীপুরের কালীগঞ্জে বিদেশ ফেরত চার সন্তানের এক জননীকে (৩৬) ঘরে আটকে রেখে গোপনাঙ্গসহ শরীরের বিভিন্নস্থানে গরম রডের ছেঁকা দিয়েছে তার স্বামী। পাষন্ড ওই স্বামী তার স্ত্রীর দু’স্তনের কিছু অংশ কেটে ফেলেছে। এ ঘটনায় পুলিশ শনিবার ওই গৃহবধূর স্বামীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতের নাম তমিজ উদ্দিন (৫০)। সে কালীগঞ্জ উপজেলার কালীগঞ্জ পৌর এলাকার বালীগাঁও গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে।

নির্যাতিতার মা খোসআক্তার ও স্বজনরা জানান, প্রায় দেড়যুগ আগে নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ডাঙ্গা ইউনিয়নের কাজৈর গ্রামের তৈয়ব আলীর মেয়ের সঙ্গে তার মামাত ভাই তমিজ উদ্দিনের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে চারটি ছেলে সন্তান রয়েছে। স্থানীয় এক কারখানার পাশে তমিজ উদ্দিনের চায়ের দোকান রয়েছে। সংসারে অভাব অনটন মেটাতে প্রায় চার বছর আগে স্বামীর সম্মতিতেই তমিজ উদ্দিনের স্ত্রী লেবাননে যায় নারী শ্রমিকের কাজে যায়। সেখান থেকে দুই বছর পর দেশে ফিরে আসে সে। প্রথম স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে তমিজ উদ্দিন আরো ৫টি বিয়ে করে। তবে সেগুলো টিকে নি। এদিকে প্রথম স্ত্রী দেশে ফিরে আসার পর পারিবারিক নানা বিষয়াদি নিয়ে তার সঙ্গে স্বামীর প্রায়শঃ ঝগড়া বিবাদ চলে আসছিল। এর জের ধরে ঈদের একদিন পর গত সোমবার হতে বৃহষ্পতিবার পর্যন্ত চারদিন ঘরে আটকে রেখে তমিজ উদ্দিন তার স্ত্রীকে নানাভাবে নির্যাতন করে। এক পর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার রাতে তমিজ উদ্দিনের বড় ছেলে তামিম বিষয়টি কালীগঞ্জ থানা পুলিশকে জানায়। খবর পেয়ে পুলিশ ওই বাড়ী থেকে গুরুতর আহত ওই গৃহবধূকে বিবস্ত্র অবস্থায় উদ্ধার করে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করে। এসময় তার স্বামী তমিজ উদ্দিনকে আটক করে পুলিশ।

নির্যাতিতা ওই গৃহবধূ জানান, লোহার রড গরম করে তার গোপনাঙ্গ ও হাত-পাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছেঁকা দেয় এবং দুটি স্তনের কিছু অংশ কেটে ফেলেছে ও মারধর করেছে স্বামী তমিজ উদ্দিন।

কালীগঞ্জ থানার এসআই মো. মনিরুজ্জামান জানান, নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূকে বিবস্ত্র অবস্থায় তার স্বামীর বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এঘটনায় স্বামী তমিজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছে ওই গৃহবধূ। পুলিশ তমিজ উদ্দিনকে শনিবার গ্রেফতার করেছে।

LEAVE A REPLY