আর কত শুনতে হবে ধর্ষিতা নারীর চিৎকার !!

আপডেট: অক্টোবর ৫, ২০২০
0

মোঃআজিজুল হুদা চৌধুরী সুমন

সোশ্যাল মিডিয়ায় কল্যাণে ধর্ষিতার ছবি (ভিডিওসহ) পুরো রগরগে কাহিনী এখন হাতের মুঠোয়। আইনের বালাই নেই।সংবিধানের পাত্তা নেই।

সবই এখন আমাদের তথ্য অধিকার’র আওতাভুক্ত।

সংবিধানের ৪৩ অনুচ্ছেদ নাগরিকদের যে ন্যূনতম ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষার অধিকার দিয়েছে গণমাধ্যমে বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্ষিতার ছবি প্রকাশ করে সে অধিকারটিও কেড়ে নিচ্ছি আমরা। কিন্তু ধর্ষিতার ব্যক্তিগত গোপনীয়তার অধিকার তো অনেক পরের কথা,তার নাম-পরিচয় প্রকাশে রীতিমতো প্রতিযোগিতা হচ্ছে। ধর্ষিতার ছবি এমনকি পারলে ভিডিওও প্রকাশ করার মহড়া চলে। ধর্ষণপরবর্তী ছবি প্রকাশও করতে ছাড়ে না কোনো কোনো অখ্যাত গণমাধ্যমের কিছু পাগল।

মাঝে মাঝে মনে হয় আইন দিয়ে জগতে কিছু হয় না। সব বড় বড় কথা,আসলে অস্টিনই ঠিকই বলেছিলেন, Law is the command of the sovereign। কথাটি আরো সত্য মানি যখন তার শেষ কথাটি ‘backed by the threat of punishment’ স্মরণ করি। আসলে আইন হলো সবলের শক্তি, আর দুর্বলের বোঝা। আইন কাজে লাগিয়ে কেউ হয় সুবল নয়তো সুশীল। বাকিরা সব বেয়ারা।

দেড়শ’ বছর আগে এখানে ধর্ষণবিরোধী আইন হয়। দণ্ডবিধিতে ধর্ষণবিরোধী আইন পাকাপোক্ত। ১৫৬ বছরেও এর তেমন কোনো পরিবর্তন প্রয়োজন পড়েনি। আমরা কথায় কথায় আইনের দোহাই দিতে অভ্যস্ত হয়ে পড়ছি। শুধু ধর্ষণ কেন নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে অনেক আইনই আছে দেশে। তারপরও আমরা প্রয়োজনের তাগিদে ২০০০ সালে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন করেছি। কিন্তু নারী নির্যাতন তাতে কিছু কমেনি। শিশু নির্যাতন আরো বেড়েছে। তাই মূল কথা হলো আইন থাকলেই হবে না, আইনের প্রয়োগ চাই, ন্যায়দণ্ড সবার জন্য সমান হওয়া চাই।

১৮৬০ সালে ব্রিটিশরাজ ধর্ষণের শাস্তি যাবজ্জীবন করেছিলেন। জরিমানার ব্যবস্থাও করে গেছেন ফিরিঙ্গিরা। ২০০০ সালে আমরা যে নারী ও শিশু নির্যাতন বিরোধী আইন করেছি তাতেও যাবজ্জীবনের ব্যবস্থাই করেছি। ধর্ষণজনিত কারণে মৃত্যু হলে ‍আছে মৃত্যুদণ্ডের ব্যবস্থাও। অপরাধটি আমলযোগ্য ও ‍জামিন অযোগ্য। কিন্তু তারপরও আমরা দেখছি, বাইরে আসামির মুক্ত ঘোরাঘুরি করছে,আর চার দেয়ালে বন্দি ধর্ষিতা নারী।

লেখকঃ মোঃআজিজুল হুদা চৌধুরী সুমন
সদস্য, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি জাতীয় পার্টি
সহসভাপতি, জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি
সভাপতি, জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণ

LEAVE A REPLY