জাতি ধর্ম বর্ণ গোত্র সকলের শান্তিময় বিশ্ব গড়বেন জো বাইডেন

আপডেট: জানুয়ারি ১৪, ২০২১
0

বিশ্বর সেরা গণতান্ত্রিক মানবাধিকার আইনের শাসনের দেশ আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জো বাইডেন প্রেসিডেন্ট ও কমলা হেরিজ ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় তাদেরকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়ে এক সমাবেশের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ ও ন্যাপ ভাসানী যৌথভাবে আজ সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাব চত্তর ঢাকায়।

সমাবেশে সভাপত্বি করেন ন্যাপ ভাসানী চেয়ারম্যান এম এ ভাসানী।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন-সাবেক রাষ্ট্রদূত অধ্যাপক ড. নিমচন্দ্র ভৌমিক।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি এম এ জলিল, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আউয়াল, কনজাগেটিভ পার্টির সভাপতি আনিসুর রহমান দেশ, বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক মুক্তি আন্দোলনের সভাপতি আশরাফ আলী হাওলাদার, জাসদ নেতা হুমায়ুন কবির, ন্যাপ ভাসানীর সাধারণ সম্পাদক রেদওয়ান সিকদার, নারী নেত্রী এলিজা রহমান, জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সমীর রঞ্জন দাস ও দপ্তর সম্পাদক কামাল হোসেন, ন্যায়বিচার পার্টির মোঃ লিটন ও নকিব হক প্রমুখ।

অধ্যাপক নিমচন্দ্র ভৌমিক বলেন, এই আমেরিকা প্রায় ৫শত বছর যাবৎ গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের দেশ শাসিত হইতেছে। আমেরিকা বিশে^র শান্তির জন্য কাজ করছে। বিশেষভাবে মানবাধিকার বাস্তবায়নের জন্য জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা রেখেছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য মুক্তিযুদ্ধের সমর্থন দিয়েছে আমেরিকার জনগণ ও সিনের এডওয়ার্ড কেনেডী। আমরা এই কেনেডী ও জনগণের কাছে কৃতজ্ঞ ও ঋণী। আজ আমরা যেই সমাবেশের আয়োজন করেছি সেই সামাবেশের লক্ষ্য হলো আমেরিকার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হেরিজ কে অভিনন্দন শুভেচ্ছা জানানোর জন্য। আমরা এই কারণেই তাদেরকে অভিনন্দন জানাচ্ছি যে, তাদেরকে অনেক প্রতিকুলতার অবস্থার পর আমেরিকার জনগণ এই দুইজনকে নির্বাচন করেছে এবং আগামীতে জাতি ধর্ম বর্ণ গোত্র সকলের শান্তিময় বিশ^ প্রতিষ্ঠা করবেন এই আশা প্রকাশ করছি।

এম এ ভাসানী বলেন, বাংলাদেশের বন্ধু আমেরিকা। সেটির প্রতিফলন ঘটেছে আমেরিকার ডিভি’র মাধ্যমে প্রায় ৫লক্ষ লোকদের কর্মসংস্থান ও নাগরিকত্ব দিয়েছে। সেই কারণে আমরা আমেরিকার সরকারের চিরকৃতজ্ঞ। সাথে সাথে আমরা বলতে চাই আগামীতে জো বাইডেন ও কমলা হেরিজ বাংলাদেশের পক্ষে কাজ করবেন। এই আশা ব্যক্ত করে। সাথে সাথে তিনি আরো বলেন, আগামী দিনগুলোতে জো বাইডেন ও কমলা হেরিজ বাংলাদেশের অর্থনীেিত বিশেষ ভুমিকা রাখেবেন। যেমন-গার্মেন্টস সেক্টরে তারা অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বাংলাদেশে কাজ দিবেন।

এম এ জলিল বলেন, আমেরিকার গণতান্ত্রিক দেশ। তাদের সরকার পরিবর্তন হয় নির্বাচনের মাধ্যমে তার প্রতিফলন জো বাইডেন ও কমলা হেরিজ। আমরা জো বাইডেন ও কমলা হেরিজের সুস্বাস্থ ও দীর্ঘায়ু কামনা করি। তারা দুইজনে আমেরিকার জনগণ ও বিশে^র সাধারণ মানুষের পক্ষে কাজ করবেন এ আশা ব্যক্ত করনে।