জয়পুর হাট কার্যালয় পুলিশ ঘেরাও : সরকার ব্যর্থতা ঢাকতে বিরোধীদলের ওপর জুলুম চালাচ্ছে -মীর্জা ফখরুল

আপডেট: জানুয়ারি ১৩, ২০২১
0

নিজস্ব প্রতিবেদক :
বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ভিত্তিহীন মামলায় চার্জগঠন ও গ্রেফতারী পরোয়ানা জারীর প্রতিবাদে বিএনপি’র কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিলের প্রস্তুতিকালে আজ দুপুর সাড়ে ১২টায় শতাধিক পুলিশ জয়পুরহাট জেলা বিএনপি’র আহবায়কের বাসা সংলগ্ন কার্যালয় ঘেরাও করে জেলা বিএনপি’র আহবায়ক অধ্যক্ষ মোঃ শামছুল হক,

সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোঃ আমিনুর রহমান বকুল, যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল ওহাব, সদস্য মওদুদ আলম, আনিসুর রহমান তালুকদার, সোহেল তালুকদার ও তাজউদ্দিন আহম্মেদ তাজসহ বিএনপি এবং অঙ্গ সংগঠনের কমপক্ষে ২৩ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ এক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, “বর্তমান অবৈধ সরকারের পায়ের নীচের মাটি সরে গেছে বলেই তারা বিএনপি’র যেকোন কর্মসূচিতেই আতঙ্কিত বোধ করছে। সেজন্য সরকার আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর ভর করেছে। সরকার এখন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে জনগণের বিরুদ্ধে লেলিয়ে দিচ্ছে। ক্ষমতার দাপটে বিএনপি-কে ঠেকাতে এবং বিএনপি’র কর্মসূচি বানচাল করতে কর্মসূচি শুরুর প্রাক্কালে নেতাকর্মীদেরকে পাইকারী হারে গ্রেফতার করা হচ্ছে। নিজেদের দুর্নীতি-দুরাচারের সত্য কাহিনী এখন সরকারী দলের নেতাদের মুখ থেকেই বের হচ্ছে ফলে দেশব্যাপী গণধিক্কার উঠেছে। ফলশ্রুতিতে সরকার আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের আগের রাতে ভোটের মাধ্যমে নির্লজ্জভাবে দখলকৃত রাষ্ট্রক্ষমতা আঁকড়ে রেখে আওয়ামী সরকার এখন ফ্যাসিবাদের চরম মাত্রায় এসে উপনীত হয়েছে। বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোকে রাজনীতির ময়দান থেকে সরিয়ে দিতে যেকোন শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির ওপর হামলা চালিয়ে নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা যেন বর্তমান আওয়ামী সরকারের রুটিন ওয়ার্কে পরিণত হয়েছে। দেশকে বিরোধী দলশুন্য করার ধারাবাহিকতায় আজ জয়পুরহাটে বিক্ষোভ মিছিলের প্রস্তুতির সময় জেলা বিএনপি’র আহবায়কসহ নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

ক্ষমতাসীনরা গুম, খুন, বিচার বহির্ভূত হত্যা, অপহরণ, চাঁদাবাজী, দখলবাজী, মুক্তিপণ আদায়কে জাতীয় সংস্কৃতির অঙ্গে পরিণত করেছে। দেশব্যাপী দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতি, গ্যাস-বিদ্যূৎ ও বিশুদ্ধ পানির অভাব, সর্বোপরি করোনা ভাইরাসের কারণে জনজীবনে যখন ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা, তখন সরকার তাদের ব্যর্থতা ঢাকতেই দেশব্যাপী চালানো হচ্ছে বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে মিথ্যা মামলায় কারাগারে আটকে রাখার হিড়িক। এটি গণবিরোধী সরকারের চলমান নিরবচ্ছিন্ন দমন নীতিরই বহি:প্রকাশ। তবে সকল অপকর্ম ও অপশাসনের অবসান ঘটাতে জনগণ এখন ঐক্যবদ্ধ। জনগণের ক্ষমতা জনগণের নিকট ছেড়ে না দিলে অবৈধ সরকারের ক্ষমতার মসনদ যেকোন মূহুর্তে ধ্বসে পড়বে।”
বিএনপি মহাসচিব অবিলম্বে জয়পুরহাট জেলা বিএনপি’র নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত অসত্য মামলা প্রত্যাহার এবং তাদের নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান।