বারি’তে ইলেকট্রনিক ডিভাইসের মাধ্যমে নলকূপ সেচ স্কীমের প্রাথমিক জরিপ ও তথ্য সংগ্রহের উপর কর্মশালা শুরু

আপডেট: নভেম্বর ১৫, ২০২১
0

গাজীপুর প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটে (বারি) সেচ ও পানি ব্যবস্থাপনা বিভাগের উদ্যোগে “ইলেকট্রনিক ডিভাইসের (ঞঅই) মাধ্যমে গভীর ও অগভীর নলকূপ সেচ স্কীমের প্রাথমিক জরিপ (ইধংবষরহব ঝঁৎাবু) তথ্য সংগ্রহ” এর উপর ফিল্ড ইনিউমারেটর (গণনাকারী) প্রশিক্ষণ কর্মশালা সোমবার উদ্বোধন করা হয়েছে।

ইনস্টিটিউটের এফএমপিই বিভাগের সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত ‘ভূ-গর্ভস্থ পানির সংরক্ষণ এবং বাংলাদেশের সেচ নির্ভর কৃষি ব্যবস্থার দক্ষতা ও উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধিকরণ সমীক্ষা প্রকল্প’ এর অর্থায়নে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা বারি’র মহাপরিচালক ড. দেবাশীষ সরকার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ওই প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন করেন।

বারি’র পরিচালক (সেবা ও সরবরাহ) ড. মো. কামরুল হাসান-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বারি’র পরিচালক (পরিকল্পনা ও মূল্যায়ন) ড. রীনা রানী সাহা, পরিচালক (গবেষণা) ড. মো. তারিকুল ইসলাম, পরিচালক (প্রশিক্ষণ ও যোগাযোগ) ড. মুহাম্মদ সামসুল আলম। কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য এবং প্রকল্পের সার্বিক দিক উপস্থাপন করেন বারি’র সেচ ও পানি ব্যবস্থাপনা বিভাগের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এবং এই প্রকল্পের প্রকল্প সমন্বয়কারী পরিচালক ড. সুজিৎ কুমার বিশ্বাস। কর্মশালায় ২০ জন সুপারভাইজর ও ফিল্ড ইনিউমারেটর অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বারি’র মহাপরিচালক ড. দেবাশীষ সরকার বলেন, আমাদের কৃষিতে ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য অধিক পরিমাণে পানি সেচের প্রয়োজন হচ্ছে। পাশাপাশি আমাদের কৃষকদের মধ্যে কোন ফসলের জন্য কি পরিমাণ পানি সেচের প্রয়োজন সে সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকায় অনেক সময় পানির অপচয় হচ্ছে। কিন্তু এর ফলে আমাদের ভূগর্ভস্থ পানির স্তর দিন দিন নিচে নেমে যাচ্ছে।

তাই পানির কার্যকরী ব্যবহার এখন সময়ের দাবি। আমি আশা করি, এই প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের সার্বিক পানি ব্যবস্থাপনার একটি সঠিক সমীক্ষা প্রণয়ন করা সম্ভব হবে এবং এর মাধ্যমে একটি ভাল প্রতিবেদন উপস্থাপন করা যাবে।

###
মোঃ রেজাউল বারী বাবুল
গাজীপুর।
১৫/১০/২০২১ ইং।