বায়তুশ শরফের পীর মাওলানা কুতুবউদ্দিন ও বাইতুশ শরফ দরবার মসজিদের খতিব মাওলানা নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে শিবিরের শোক

আপডেট: মে ২১, ২০২০
0
শাহ মাওলানা কুতুব উদ্দিন

বায়তুশ শরফের পীর মাওলানা কুতুবউদ্দিন (রহেমাহুল্লাহ) ও বাইতুশ শরফ দরবার মসজিদের খতিব মাওলানা নুরুল ইসলাম (রহেমাহুল্লাহ) এর ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

এক যৌথ শোকবার্তায় ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ সিরাজুল ইসলাম ও সেক্রেটারি জেনারেল সালাহউদ্দিন আইউবী বলেন, বায়তুশ শরফের পীর মাওলানা কুতুবউদ্দিন গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিঊন)। তাঁর ইন্তেকালে জাতি একজন বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন ও উজ্জ্বল নক্ষত্রকে হারালো। তিনি চট্টগ্রামসহ সারা বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসার পাত্র ছিলেন। একদিকে যেমন তিনি অর্থনীতিবিদ হিসেবে কৃতিত্বের সাথে ইসলামী ব্যাংকের শরিয়াহ বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন। তেমনি তিনি ছিলেন চুনতি হাকিমিয়া কামিল মাদরাসার প্রধান পৃষ্ঠপোষক। সমাজ থেকে শির্ক-বিদয়াতসহ ইসলামবিরোধী কর্মকান্ড দূর করতে তিনি আমৃত্যু প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছিলেন। বিখ্যাত চুনতি হাকিমিয়া কামিল মাদরাসায় দায়িত্ব পালনসহ বিভিন্নভাবে ইসলামী শিক্ষার প্রসারে আপ্রাণ প্রচেষ্টা চালিয়েছেন। দেশে ইসলামী অর্থব্যবস্থার প্রসারেও তিনি অসামান্য অবদান রেখেছেন। ইসলামের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে অনেক গ্রন্থ রচনা করেছেন এ আলেমে দ্বীন। ওয়াজ-মাহফিলের মাধ্যমে দেশ-বিদেশে ইসলামের দাওয়াত পৌঁছে দিতে তাঁর ভূমিকা ছিল অগ্রগণ্য। একইসাথে তিনি দেশে ইসলাম ও ইসলামী আন্দোলনের প্রসার, আলেম সমাজকে ঐক্যবদ্ধকরণ এবং ইসলামবিরোধী সকল কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন। অসহায় দুস্থ মানুষের জন্য তাঁর দানশীলতা ও বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর প্রচেষ্টা অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তিনি বিনয়ী, আকর্ষণীয় চরিত্রের অধিকারী ও সর্বজন শ্রদ্ধেয় ছিলেন। দেশ ও জনগণের জন্য তাঁর গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা আলেম সমাজ ও জাতি চিরকাল মনে রাখবে, ইনশাআল্লাহ।

অন্যদিকে একই দিনে ইন্তেকাল করেছেন বাইতুশ শরফ দরবার মসজিদের খতিব মাওলানা নুরুল ইসলাম (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিঊন)। তিনি দ্বীনের দায়ী হিসেবে ইসলামের পথে আহবানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। তাঁর জ্ঞানের বিশালতা ও পান্ডিত্ব সর্বমহলে স্বীকৃত। জীবনের শেষ পর্যন্ত তিনি দ্বীনের খেদমতে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছিলেন। ইসলামের পক্ষে এবং ইসলামবিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে তাঁর কণ্ঠ ছিল সব সময় উঁচু।

দেশের এই সংকটকালে তাঁদের মত প্রবীণ আলেমে দ্বীনদের ইন্তেকালে দেশবাসী শোকাহত। আমরা মরহুমদের মাগফিরাতের জন্য আল্লাহর নিকট দোয়া করছি এবং তাঁদের শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি। আল্লাহ তায়ালা তাঁদের জান্নাতুল ফেরদৌসের মেহমান হিসেবে কবুল করুন।

LEAVE A REPLY