গোয়েন্দা রিপোর্টে খুলছে না ক্যাম্পাস : খুলে দেয়ার দাবীতে দেশজুড়ে শিক্ষার্থী বিক্ষোভ বাড়ছেই

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২১
0

গত এক সপ্তাহ ধরে ক্যাম্পাস ও হল খুলে দেয়ার দাবীতে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলন চলছে। কিন্তু এ দাবী আরো জোড়ালো হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত ৭কলেজসহ দেশের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেও ছড়িয়ে পড়েছে।
এদিকে বিভিন্ন গণমাধ্যম বলছে ,হল খুলে দিলেই সরকার পতনের আন্দোলন ছড়িয়ে ড়েতে পারে গোয়েন্দাদের এমন রিপোর্টের প্রেক্ষিতে সরকার শিক্ষাঙ্গন খুলে দেয়ার ব্যাপারে নানান কথা বলে যাচ্ছে । কিন্তু ক্যাম্পাস খুলে দেয়ার মতো নিদিষ্ট সময় -সীমা নির্ধারন করে দিচ্ছে না।
এদিকে শিক্ষামন্ত্রী দিপু মনি বলেছেন , ২৪ মের’র পরে ভ্যাকসিন দেয়ার পর উচ্চ শিক্ষাঙ্গন গুলো খুলে দেয়ার পরিকল্পনা করছে সরকার। এরপর সরকারী ঘোষনায় অনলাইনে বা বিভিন্ন পন্থায় বিভিন্ন সেমিস্টারের পরীক্ষা নেয়াও বন্ধ করে দেয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলেঅ ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। আর এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে শিক্ষার্থীরা।

আজ বৃহস্পতিবার পরীক্ষার দাবীতে মাঠে নেমেছে শিক্ষার্থীরা। সকাল থেকে রাজধানীর শাহবাগে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন। তবে আগামী রোববারের মধ্যে দাবি আদায় না হলে শিক্ষার্থীরা কঠোর আন্দোলনের ঘোষণা দেন।

এর আগে সকালে বেশ কিছু শিক্ষার্থী পরীক্ষার দাবিতে শাহবাগে অবস্থান করলে তাদের ঠেকানোর চেষ্টা করে পুলিশ। ধীরে ধীরে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে বিক্ষোভ শুরুর আগেই পুলিশ তাদের মধ্য থেকে অন্তত ১৪ জনকে আটক করে।

এছাড়াও পরীক্ষার দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছেন কলেজ অব হোম ইকোনমিক্সের ছাত্রীরা। তাদের অবস্থানের কারণে ওই সড়কে যানচলাচল ব্যাহত হয়।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় রাজধানীর আজিমপুরে কলেজের সামনের সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন শিক্ষার্থীরা। এসময় তারা ‘১৯ সালের পরীক্ষা একুশে ধোঁয়াশা’, ‘ঘোষিত পরীক্ষা বাতিল হতে দিব না’, ‘পরীক্ষা চাই’, ‘পরীক্ষা চাই’ স্লোগান দিতে থাকে।

এদিকে বরিশালে সরকা‌রী ব্রজ‌মোহন ( বিএম) ক‌লে‌জের শিক্ষার্থীরা জাতীয় বিশ্ববিদ‌্যাল‌য়ের অন্তর্ভূক্ত অনার্স চতুর্থ ব‌র্ষের মৌ‌খিক ও ব‌্যবহা‌রিক পরীক্ষা গ্রহ‌ণসহ সকল ব‌র্ষের পরীক্ষা গ্রহ‌ণের দাবি‌তে সড়ক অব‌রোধ ক‌রে বি‌ক্ষোভ করে‌ছে। বৃহস্প‌তিবার বেলা ১১টা থে‌কে ব্রজ‌মোহন ক‌লে‌জে‌র সাম‌নের সড়ক অব‌রোধ ক‌রে বি‌ক্ষোভ শুরু ক‌রে শিক্ষার্থীরা। এ সময় ক‌লে‌জের সামনের সড়‌কে বি‌ক্ষোভ মি‌ছিলও ক‌রে তারা। বেলা সা‌ড়ে ১১টার দি‌কে ক‌লে‌জের অধ‌্যক্ষ ড. গোলাম কিব‌রিয়া আন্দোলনরত শিক্ষার্থী‌দের বিভিন্ন আশ্বাস দিলেও শিক্ষার্থীরা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চা‌লি‌য়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন।